default-image

ভারী বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় আবারও বন্যা দেখা দিয়েছে। পানি বৃদ্ধি পেয়ে মানুষের বসতবাড়িসহ অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্যায় প্লাবিত হয়েছে। বসতবাড়িতে পানি ওঠায় পানিবন্দী হয়ে অনেকেই তাঁদের গবাদিপশু নিয়ে বিপাকে রয়েছেন। অন্যদিকে করোনার কারণে সাধারণ শ্রমজীবী পেশার মানুষের নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা। আবার ঘর পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে।

বর্তমানে অব্যাহত বৃষ্টির ফলে উপজেলা সদর ও সিলেট সদরের সঙ্গে যোগাযোগের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি সড়কের ওপর দিয়ে কোথাও কোথাও দুই থেকে তিন ফুট উচ্চতায় পাহাড়ি ঢলের পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এর ফলে বঙ্গবীর-গোয়াইনঘাট ও রাধানগর-গোয়াইনঘাট এবং সালুটিকর-গোয়াইনঘাট, হাদারপার-গোয়াইনঘাট, হাদারপার-সালুটিকর সড়ক পানিতে তলিয়ে গিয়ে উপজেলা সদর ও সিলেট সদরের সঙ্গে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়েছে।

পাহাড়ে বৃষ্টি হলে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। যদি পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়, তাহলে মানুষের জানমাল রক্ষায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্লাবিত এলাকার প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকে আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এদিকে আকস্মিক বন্যায় জাফলং ও বিছনাকান্দি কোয়ারি-সংশ্লিষ্ট কয়েক হাজার পাথর ও বালুশ্রমিক বেকার হয়ে পড়েছেন।

গত কয়েক দিনের ভারী বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে গত বৃহস্পতিবার থেকে উপজেলার নিম্নাঞ্চলগুলো প্লাবিত হতে থাকে। সারী নদী ও পিয়াইন নদী দিয়ে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হয় পাহাড়ি ঢলে। এই পাহাড়ি ঢলে ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0