প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, সম্প্রতি বাংলাদেশ ৫২ বিলিয়ন ডলারের রপ্তানির অনন্য মাইলফলক অর্জন করেছে। গত এক যুগে নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস ও বিদ্যুৎ সরবরাহের কারণে আমাদের শিল্পায়ন অতীতের সকল সময়কে ছাড়িয়ে গেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০৮ সালের নির্বাচনের আগে দিন বদলের ইশতেহারে সবার ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। সেই রূপকল্প আমরা বাস্তবায়ন করেছি। মানুষের জীবনমান উন্নয়নের জন্য নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস–বিদ্যুতের কোন বিকল্প নেই। আমরা সে লক্ষ্যেই এগিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু ইউক্রেনে যুদ্ধের কারণে হঠাৎ করেই সব জায়গায় কিছুটা ছন্দপতন হয়েছে।

আমাদের বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য ১ হাজার ৬০০ থেকে ১ হাজার ৭০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাসের প্রয়োজন উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা দিতে পারছি মাত্র ৯০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস। এর বেশি গ্যাস আমরা দিতে পারছি না, কারণ আমাদের অগ্রাধিকার দিতে হচ্ছে কৃষি ও শিল্পখাতকে। কৃষির জন্য সার অপরিহার্য। সার উৎপাদনেও আমাদের অনেক পরিমাণ গ্যাস দিতে হচ্ছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের বর্তমানে দৈনিক গ্যাসের উৎপাদন ২ হাজার ৩০০ মিলিয়ন ঘনফুট। চাহিদার বড় একটি অংশ এলএনজি আমদানি করে জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ করা হচ্ছে। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার সময়ও গ্যাসের উৎপাদন ছিল দৈনিক ১ হাজার ৭৪৪ মিলিয়ন ঘনফুট। সেখান থেকে আমরা উৎপাদন সক্ষমতা বাড়িয়েছিলাম দৈনিক ২ হাজার ৭৫০ মিলিয়ন ঘনফুট পর্যন্ত। ২০১৮ সাল পর্যন্ত আমরা এ সক্ষমতায় গ্যাস উৎপাদন করেছি। কিন্তু দু:খজনক হলেও সত্য যে, আমাদের নিজস্ব গ্যাস উৎপাদন কমতে শুরু করেছে, আমাদের খনিগুলোর মজুত কমে যাওয়ার কারণে।

এলএনজি আমদানির জন্য কাতার ও ওমানের সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদী চুক্তির আওতায় আমরা এলএনজি পাচ্ছি বলে মন্তব্য করেন নসরুল হামিদ। তিনি বলেন, এর পাশাপাশি আন্তর্জাতিক স্পট মার্কেট থেকেও এলএনজি আমদানি করতাম। করোনার আগে আমরা এক ইউনিট এলএনজি ৪ ডলারেও আমদানি করেছি কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে সেটা ৪১ ডলারও ছাড়িয়ে গেছে। এত উচ্চমূল্যে আমদানি করলে আমাদের অর্থনীতির উপর বিশাল চাপ তৈরি হবে। শুধু গ্যাসের দামই না। বেড়েছে সব ধরনের জ্বালানি তেলের দাম। ২০২১ সালের জুলাইয়ে ডিজেল ব্যারেলপ্রতি ৭৭ ডলার ছিল। সেটা এ বছরের জুনে ১৭১ ডলারে দাঁড়িয়েছে।

এ পরিস্থিতি বেশিদিন থাকবে না বলে আশা প্রকাশ করেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, এ বছরের মধ্যেই পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের দ্বিতীয় ইউনিট, রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র এবং ভারত থেকে ১ হহাজার ৬০০ মেগাওয়াট আমদানিকৃত বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হবে। তিনি আরও বলেন, এ সংকট আমরা সবাই মিলেই পার করবো। তাই এ পরিস্থিতিতে সবার কাছে একটাই অনুরোধ, আসুন আমরা সবাই গ্যাস-বিদ্যুৎ ব্যবহারে মিতব্যয়ী হই।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন