গ্রেপ্তারের পর আসামি হাসানের নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল

বিজ্ঞাপন

পুলিশ গ্রেপ্তারের পরপরই মানবপাচার ও ডাকাতি মামলার আসামি মো. হাসানের নির্যাতনের একটি ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুক) ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওতে দেখা যায়, তিনি জসিমউদ্দিন নামে এক ব্যক্তিকে নির্যাতন করছেন। ভিডিওটি প্রকাশের পর পুলিশের পক্ষ থেকে নির্যাতিত জসিমউদ্দিন ও তাঁর পরিবারকে হাসানের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে।

ভোলার লালমোহন উপজেলায় ডাওরী বাজারে হাসানের নির্যাতনের শিকার হন জসিমউদ্দিন নামে এক ব্যক্তি। বাজারে প্রকাশ্যে এবং স্ত্রী ও দুই সন্তানের সামনে জসিমউদ্দিনকে নগ্ন করে হাত-পা বেঁধে লাঠি দিয়ে মারধর করেন হাসান। গতকাল রোববার ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এরপর এ নিয়ে সারা দেশের মানুষের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ভিডিও চারমাস আগের। অবশ্য পুলিশ বলছে এটি গত বছরেরও হতে পারে।

হাসান স্থানীয়ভাবে মাদক ব্যবসায়ী হিসেবেই পরিচিত। তাঁর বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় চারটি মামলা আছে।

ভোলার লালমোহন উপজেলার কালমা ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মানুষের কাছে সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত মো. হাসান। ২০১৮ সালে বিভিন্ন সময় এলাকার ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালক মো. জসিমউদ্দিনকে ইয়াবা বিক্রি করার জন্য চাপ দেয়। জসিমের বাড়ি ওই একই ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের চরলক্ষ্মী গ্রামে। তিনি ইয়াবা বিক্রি করতে অস্বীকার করেন। ইয়াবা বিক্রি করতে অস্বীকার করায় তাকে প্রকাশ্যে স্থানীয় বাজাররে স্ত্রী ও দুই সন্তানের সামনে নগ্ন করে নির্যাতন করা হয়।

কেউ একজন এটি ভিডিও করেন। তখন এটি ফেসবুকে না ছড়ালেও হাসান পুলিশের হাতে গ্রেপ্তারের পরপরই তা ছড়িয়ে দেওয়া হয়। অল্প সময়ের মধ্যে বর্বর নির্যাতনের ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে যায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, উপজেলার ডাওরী বাজারে একই ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা জসিমকে শত শত মানুষ ও তার দুটি শিশু সন্তানের সামনে নির্যাতন করা হয়। হাসান ২নম্বর ওয়ার্ডের মিস্ত্রি বাড়ির আবু ড্রাইভারের ছেলে। মোটরসাইকেল চালক জসিমকে দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা বিক্রির জন্য নানাভাবে প্রস্তাব দিয়ে আসছিল হাসান। জসিম উক্ত প্রস্তাবে রাজি না হলে ডাওরী বাজারে জনসম্মুখে নগ্ন করে তার দুটি শিশু সন্তানের সামনে বিএনপিকর্মী ও সন্ত্রাসী আখ্যা দিয়ে হাত পা বেঁধে নির্মমভাবে নির্যাতন করে।

default-image

স্থানীয়রা আরও জানান, জসিম উদ্দিনের বাবা অনেক আগে হাসানকে লাঠি দিয়ে মারধর করে। তারই প্রতিশোধ নিতে হাসান এ ঘটনা ঘটাতে পারে। তারা বলেন, হাসানের চাঁদাবাজির শিকার ডাওরী বাজারসহ কালমা ইউনিয়নের বেশির ভাগ ব্যবসায়ী।

লালমোহন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর খায়রুল কবীর প্রথম আলোকে বলেন, ভিডিওটি সম্ভবত ২০১৮ সালের। হাসানকে রোববার রাতে চট্টগ্রামের পাহাড়তলী থানার একটি ডাকাতি মামলায় গ্রেপ্তার করার পর পরই এ ভিডিওটি আপলোড হয়েছে। ওসি বলেন, হাসানের বিরুদ্ধে চারটি মামলা রয়েছে। একটি মানবপাচার ও তিনটি ডাকাতি মামলা। ভোলা লালমোহন থানার মামলাটি ডাকাতির। ওসি বলেন, হাসান কালমা ইউনিয়নের যেসব পরিবারের ওপর নির্যাতন ও চাঁদাবাজি করেছে, তারা ইচ্ছে করলে মামলা দিতে পারে, জসিমউদ্দিনের পরিবারকেও মামলা করতে বলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন