বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রাম বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক এ কে এম মোজাম্মেল হক এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি ইমন ও দিপু হাজির ছিলেন। বাকি চার আসামি পলাতক।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের সরকারি কৌঁসুলি মোহাম্মদ আইয়ুব খান প্রথম আলোকে বলেন, মামলার ২২ আসামির মধ্যে আদালত ছয়জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন। খালাস পান ১৪ আসামি। দুই আসামি শিশু হওয়ায় শিশু আদালতে তাদের বিচার চলছে।

২০১৪ সালের ২২ নভেম্বর নগরের পাঁচলাইশ থানার বিবির হাট এলাকায় ছাত্রলীগ কর্মী নুরুল আলমকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের বাবা মোহাম্মদ ইউসুফ বাদী হয়ে পাঁচলাইশ থানায় মামলা করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ ২০১৬ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দেয়। এতে বলা হয়, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও ভাগ–বাটোয়ারাকে কেন্দ্র করে নুর আলমকে খুন করা হয়। ১৫ সাক্ষীর সাক্ষ্য শেষে আদালত আজ এ রায় দেন।

রায় ঘোষণার পর প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে নিহত নুরুলের বাবা ও মামলার বাদী মোহাম্মদ ইউসুফ প্রথম আলোকে বলেন, রায়ের এ আদেশে আমি সন্তুষ্ট। উচ্চ আদালতে এ রায় বহাল থাকে। আসামিদের দ্রুত শাস্তি কার্যকর হয়।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন