default-image

চট্টগ্রামে এক প্রবাসীকে হত্যার দায়ে একজনকে মৃত্যুদণ্ড ও দুজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ বৃহস্পতিবার পঞ্চম অতিরিক্ত চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ অশোক কুমার দত্ত এ রায় দেন।

আদালত সূত্র জানায়, ২০০৯ সালের ১৯ অক্টোবর জেলার বোয়ালখালী শ্রীপুর গ্রামের হানিফার বাড়িতে জায়গা নিয়ে বিরোধের জেরে ঘরে ঢুকে প্রবাসী আবদুস সালামকে গলায় ছুরি দিয়ে আঘাত করে হত্যা করা হয়। ঘটনার সাত দিন আগে তিনি মধ্যপ্রাচ্য থেকে দেশে আসেন। ঘরের সামনে ভেঙে যাওয়া গোয়ালঘর মেরামত নিয়ে প্রতিবেশী আজম ও তাঁর বাবা আবদুর রাজ্জাকের সঙ্গে সালামের কথা-কাটাকাটি হয়। পরে দুপুরে ঘরে ভাত খেতে বসেন আবদুস সালাম। ওই সময় ঘরে ঢুকে তাঁকে মাটিতে ফেলে গলায় ছুরির আঘাত করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় মামলা করা হলে পুলিশ আদালতে চারজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়। এর মধ্যে আবদুর রাজ্জাক মারা যান। ১৬ জনের সাক্ষ্য শেষে আদালত এ রায় দেন।

বিজ্ঞাপন

সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) লোকমান হোসেন চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, রায়ের আদেশে বিচারক আসামি মো. আজমকে মৃত্যুদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। একই সঙ্গে আজমের মা ফরিদা বেগম ও তাঁর বোন কামরুন নাহারকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন। আসামি আজম দীর্ঘদিন থেকে পলাতক। তাঁর মা ও বোন এত দিন হাজির থাকলেও আজ রায় ঘোষণার দিন থেকে ‘পলাতক’ হয়েছেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন