হরতাল-অবরোধে পোশাক ও বস্ত্রশিল্পকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষার আহ্বান জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। গতকাল শনিবার সকালে চট্টগ্রামের বিজিএমইএ ভবনের সামনে প্রতীকী অনশন কর্মসূচি থেকে এ আহ্বান জানান তাঁরা।
রাজনৈতিক সহিংসতা বন্ধ এবং পোশাক ও বস্ত্রশিল্পকে রক্ষার দাবিতে বিজিএমইএর উদ্যোগে সকাল ১১টা থেকে প্রায় চার ঘণ্টা এ অনশন করেন ব্যবসায়ীরা। কর্মসূচিতে পোশাক কারখানার মালিকেরা অংশ নেন।
অনশন কর্মসূচিতে বিজিএমইএর প্রথম সহ-সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী বলেন, চলমান সহিংসতার কারণে পোশাক কারখানা সচল রাখা কঠিন হয়ে পড়েছে। বিদেশি ক্রেতারা বাংলাদেশ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন। এ অবস্থায় ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়া ও ভারতের দিকে ঝুঁকছেন বিদেশি ক্রেতারা। এ অবস্থা চলতে থাকলে পোশাকশিল্প মুখ থুবড়ে পড়বে। রাজনীতিবিদদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘রাজনৈতিক আন্দোলনের নামে এমন সহিংস কর্মসূচি থেকে পরিত্রাণ চাই আমরা। আপনাদের ইচ্ছায় আমরা আর চলতে রাজি নই। আপনারা জনগণের জন্য রাজনীতি করুন।’
কর্মসূচিতে ব্যবসায়ীরা বলেন, বিদেশি ক্রেতারা ক্রয়াদেশ দিলেও ঠিকমতো পণ্য জাহাজীকরণ হবে কি না তা নিয়ে তারা শঙ্কা প্রকাশ করছেন। অব্যাহত সহিংসতার কারণে ২০২১ সালে পোশাকশিল্পের ৫০ বিলিয়ন ডলারের রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রার দিকে এগিয়ে যাওয়াও কঠিন হয়ে পড়বে।
কর্মসূচিতে বক্তব্য দেন বিজিএমইএর পরিচালক সৈয়দ নজরুল ইসলাম, অঞ্জন শেখর দাশ, সাবেক প্রথম সহসভাপতি এস এম আবু তৈয়ব, সাবেক পরিচালক এস এম সাজেদুল ইসলাম, হেলাল উদ্দিন চৌধুরী প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন