চট্টগ্রামে শিশুসাহিত্যিক সুজন বড়ুয়া সংবর্ধিত

বিজ্ঞাপন

চট্টগ্রামের নন্দন কাননের ফুলকি প্রাঙ্গণ গতকাল শুক্রবার বিকেলে পরিণত হয় শিশুসাহিত্যিকদের মিলনমেলায়। বাংলা একাডেমি পুরস্কারপ্রাপ্ত শিশুসাহিত্যিক সুজন বড়ুয়ার সংবর্ধনা অনুষ্ঠানকে ঘিরে জড়ো হন দেশের স্বনামখ্যাত শিশুসাহিত্যিকেরা। বাংলাদেশ শিশু সাহিত্য একাডেমি এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন ছড়াকার লুৎফর রহমান রিটন। প্রধান অতিথি ছিলেন ছড়াকার আমিরুল ইসলাম। শিশুসাহিত্যিক আখতার হুসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন শিশুসাহিত্য গবেষক আহমদ মাযহার; ছড়াকার আলম তালুকদার; বিজ্ঞান লেখক তপন চক্রবর্তী, মোস্তফা মাসুদ; প্রকাশক জসিম উদ্দিন, মামুন সরোয়ার। স্বাগত বক্তব্য দেন অধ্যাপক আনোয়ারা আলম।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, সুজন বড়ুয়া দায়িত্বশীল লেখক। তাঁর লেখা শিশু-কিশোরদের কাছে জনপ্রিয়। বয়স্ক পাঠকেরাও তাঁর লেখা পড়ে সমৃদ্ধ হন। শিশুদের মনোজগৎকে গভীরভাবে অনুধাবন করতে পারেন বলেই তাদের জন্য সাবলীলভাবে লিখতে পারেন তিনি।
অনুষ্ঠানের শুরুতেই চট্টগ্রামের বিভিন্ন সংগঠন ফুল দিয়ে সুজন বড়ুয়াকে শুভেচ্ছা জানান। লুৎফর রহমান রিটন শিশুসাহিত্য একাডেমির সম্মাননাপত্র তুলে দেন সুজন বড়ুয়ার হাতে। তাঁকে উত্তরীয় পরিয়ে দেন আমিরুল ইসলাম।
সংবর্ধিত অতিথি সুজন বড়ুয়া বলেন, তাঁর পুরস্কারপ্রাপ্তি মূলত বাংলাদেশের শুভবোধসম্পন্ন সব শিশুসাহিত্যিকেরই জয়। তিনি একা নন, তাঁর সঙ্গে যাঁরা শিশুসাহিত্য চর্চা করেন এবং একটি মূল্যবোধসম্পন্ন, সচেতন ও প্রগতিশীল প্রজন্মের স্বপ্ন দেখেন, তাঁরা সবাই এ পুরস্কার পেয়েছেন।
অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সিরু বাঙালি, ওমর কায়সার, রাশেদ রউফ, কামরুল হাসান বাদল, উৎপল কান্তি বড়ুয়া, অরুণ শীল প্রমুখ। অনুষ্ঠানে শিশুসাহিত্যিকেরা স্বরচিত লেখা পাঠ করে শোনান।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন