default-image

সাংবাদিক মাহফুজউল্লাহ আজ শনিবার থাইল্যান্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন তাঁর মেয়ে নুসরাত হুমায়রা। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

এদিকে বিএনপির চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান প্রথম আলোকে বলেন, আজ বেলা ১১টার দিকে মাহফুজউল্লাহ ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এই সাংবাদিক হৃদ্‌রোগ, কিডনি ও ফুসফুসের রোগে ভুগছিলেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে ১০ এপ্রিল ব্যাংকক নেওয়া হয়েছিল।

গত ২ এপ্রিল অসুস্থ হয়ে পড়েন মাহফুজউল্লাহ। তখন তাঁকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ভর্তি করা হয়েছিল। পরে তাঁকে থাইল্যান্ডের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, সাংবাদিক মাহফুজউল্লাহর মরদেহ আজ রাত ১২টা ৪০ মিনিটে থাই এয়ারওয়েজে করে দেশে পৌঁছাবে। তাঁর প্রথম নামাজের জানাজা আগামীকাল বাদ জহুর গ্রিনরোড ডরমিটরি মসজিদে হবে। দ্বিতীয় নামাজের জানাজা হবে আসরের নামাজের পর জাতীয় প্রেসক্লাবে। মাহফুজউল্লাহর ইচ্ছা অনুযায়ী তাঁকে মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফন করা হবে। সার্বিক বিষয় তদারকি করছেন তাঁর বড় ভাই মাহবুবউল্লাহ ।

মাহফুজউল্লাহর মৃত্যুর খবর শুনে তাঁর বাসায় যান বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ড. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, জহির উদ্দিন স্বপন, শ্যামা ওবায়েদসহ আরও অনেকেই।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন