default-image

নদী দূষণের দায়ে সাভারের চামড়া শিল্পনগরকে ৪ কোটি ৬২ লাখ টাকা ৫০ হাজার জরিমানা করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। শিল্প নগরের কেন্দ্রীয় বর্জ্য পরিশোধনাগার (সিইটিপি) অকার্যকর রেখে তরল বর্জ্য ওভার ফ্লো (উপচে পড়া) ও বাইপাসের (নালা দিয়ে) মাধ্যমে নদীতে ফেলায় এ জরিমানা করা হয়।

পরিবেশ অধিদপ্তরের মনিটরিং অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট উইংয়ের পরিচালক রুবিনা ফেরদৌসী আজ বুধবার এক শুনানি শেষে এ জরিমানা করেন। অধিদপ্তরের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ খবর জানানো হয়।

বিজ্ঞাপন

সাভারে চামড়া শিল্পনগর প্রকল্প নেওয়া হয় ২০০৩ সালে। বুড়িগঙ্গা নদীকে বাঁচাতে ঢাকার হাজারীবাগ থেকে ট্যানারি সাভারের হেমায়েতপুরে নেওয়ার প্রকল্প নেওয়া হয় ২০০৩ সালে। ধলেশ্বরী নদীর তীরে ১৯৯ একর জমিতে চামড়াশিল্প নগর তৈরি হয়েছে। যদিও এত বছরে চামড়া শিল্পনগরের সিইটিপি কার্যকর করতে পারেনি বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশনের (বিসিক) চামড়া শিল্পনগর প্রকল্প।

এর আগে নদী দূষণের দায়ে বিসিককে একাধিকবার কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে পরিবার অধিদপ্তর। এবার বড় অঙ্কের জরিমানা করা হলো।

এদিকে গতকাল চামড়া শিল্পনগর ছাড়াও ৪টি শিল্প কারখানা ও প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়। এর মধ্যে পরিবেশ ও প্রতিবেশের ক্ষতি করার অপরাধে সাভারের ঝুমকা টেক্সটাইল মিলসকে ৭৬ হাজার ৮০০ টাকা, পরিবেশগত ছাড়পত্র ছাড়া কারখানা চালানোর অপরাধে গাজীপুরের হেলথ কেয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডকে ১০ লাখ ১ হাজার টাকা, একই অপরাধে ফতুল্লার মেসার্স আশামনি প্রিন্টিং ইন্ডাস্ট্রিজকে ২ লাখ টাকা এবং পরিবেশগত ছাড়পত্রের শর্ত ভঙ্গ করে কারখানা পরিচালনার অপরাধে নরসংদীর সিলিকন টেক্সটাইল মিলসকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করে পরিবেশ অধিদপ্তর। বিজ্ঞপ্তিতে একে ক্ষতিপূরণ ধার্য হিসেবে উল্লেখ করা হয়।

এ বিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তরের এনফোর্সমেন্ট বিভাগের পরিচালক রুবিনা ফেরদৌসী প্রথম আলোকে বলেন, ‘দূষণকারীদের বিরুদ্ধে আমাদের নিয়মিত অভিযান অব্যাহত থাকবে। অনুমোদনহীন ইটভাটাসহ দূষণকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধেও অভিযান জোরদার হবে।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0