বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকারে আসার ১৩ বছর পূর্ণ হয়েছে। এই ১৩ বছরে যে আর্থসামাজিক উন্নতি আমরা করতে পেরেছি, সেটা আমাদের দেশের তৃণমূল মানুষের প্রতি যে প্রতিশ্রুতি ছিল, সেটারই বাস্তবায়ন।’ তিনি গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রকল্পগুলোর উদ্বোধন করেন।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২৪ ও ৩৪ ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন বিগ্রেড এই নির্মাণের সার্বিক তত্ত্বাবধান করে। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গণভবনে এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনিসহ ঊর্ধ্বতন বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতারা প্রকল্প প্রান্তে উপস্থিত ছিলেন।

এ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ। সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং চিফ মেজর জেনারেল ইবনে ফজল সায়েখুজ্জামান স্বাগত বক্তব্য দেন। গণভবনে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মুখ্য সচিব আহমদ কায়কাউস। এ ছাড়া সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নজরুল ইসলাম পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে প্রকল্পের সার্বিক দিক তুলে ধরেন।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সড়কে শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজ–সংলগ্ন পথচারী আন্ডারপাসটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৫৭ দশমিক ৪২ কোটি টাকা। সিলেট শহর বাইপাস-গ্যারিসন লিংক চার লেন মহাসড়ক প্রকল্পে ব্যয় ২৭৪ দশমিক ৭০ কোটি টাকা। বালুখালী-ঘুমধুম সীমান্ত সংযোগ সড়ক প্রকল্পে ব্যয় ৭৮ দশমিক ৮৫ কোটি টাকা।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন