বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ফকির আহম্মদ মিরসরাই পৌরসভা বিএনপির আহ্বায়ক ছিলেন।
কুমিল্লায় পবিত্র কোরআন অবমাননার অভিযোগের জেরে গত ১৩ অক্টোবর হাটহাজারী উপজেলার সরকারহাট বাজারসংলগ্ন সোমপাড়া সর্বজনীন পূজামণ্ডপের ভেতরে ঢোকার চেষ্টা ও মণ্ডপের গেট ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পরদিন এই ঘটনায় হাটহাজারী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবিদুর রহমান বাদী হয়ে ৬১ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতপরিচয় ২০০ জনকে আসামি করে মামলা করেন। এই মামলায় ফকির আহম্মদকে ১৮ অক্টোবর গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।
দুপুরে ফকির আহম্মদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের মর্গে নেওয়া হলে সেখানে ভিড় করেন নেতা-কর্মীরা।

মিরসরাই উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক নুরুল আমিন অভিযোগ করে বলেন, ফকির আহম্মদের নামে আগে কোনো মামলা ছিল না। পুলিশ তাঁকে মন্দির ভাঙার চেষ্টার অভিযোগে করা মামলায় আসামি করে। এতে ফকির আহম্মদ মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন বলে দাবি করেছেন নেতা-কর্মীরা। তাঁরা জানান, গতকাল সোমবার বিকেলেও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কারাগারের মুঠোফোনে কথা হয়েছিল ফকির আহম্মদের।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন