চিকিৎসকের মামলায় গ্রেপ্তার সাংবাদিক

বিজ্ঞাপন
default-image

করোনা বিষয়ে সরকারি চিকিৎসা কার্যক্রম নিয়ে ফেসবুকে লেখায় কিশোরগঞ্জের ভৈরবে এক সাংবাদিক গ্রেপ্তার হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাতে এক চিকিৎসক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করার পর পুলিশ তাঁকে ধরে নিয়ে যায়। শুক্রবার সাংবাদিককে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ভৈরব থানায় মামলাটি করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বুলবুল আহমেদ। তিনি উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্যসচিব। ওই রাতেই পুলিশ সাংবাদিক এম আর রুবেলকে তাঁর ভৈরবপুর উত্তরপাড়ার বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে। তিনি দৈনিক ইনকিলাব পত্রিকার ভৈরব প্রতিনিধি।

পুলিশ ও মামলার এজহার সূত্রে জানা গেছে, ভৈরবে করোনা সংক্রমণ শনাক্তে নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে ২০ শয্যার ট্রমা সেন্টারে। সেটি আবার আইসোলেশন ইউনিট হিসেবেও ব্যবহার করা হচ্ছে। করোনায় আক্রান্ত কয়েকজন ওই সেন্টারে চিকিৎসাধীন। এই অবস্থায় করোনা প্রতিরোধ কমিটির পক্ষ থেকে বলা আছে, সুরক্ষাসামগ্রী না পরিধান করে কেউ ভেতরে যেতে পারবেন না। কিন্তু সাংবাদিক রুবেল বুধবার সকালে অনুমতি ছাড়াই সেন্টারের ভেতরে যান। ফিরে এসে ব্যবস্থাপনা নিয়ে সমালোচনা করে নিজের ফেসবুকে একটি লেখা প্রকাশ করেন। একই সঙ্গে মামলার বাদী বুলবুল আহমেদকে উদ্দেশ করেও পৃথক লেখা প্রকাশ করেন। এতে করে উপজেলায় করোনাভাইরাস সংশ্লিষ্ট সরকারি কার্যক্রম নিয়ে সবার মধ্যে ভুল ধারণা তৈরি হয়। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করা অনেক চিকিৎসকের মনোবল ভেঙে যায়। মূলত রুবেল ব্যক্তিগত প্রতিহিংসা থেকে মিথ্যা তথ্য ফেসবুকে প্রকাশ করেছেন। তিনি করোনাবিষয়ক কার্যক্রম ও স্বাস্থ্য খাতকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে ফেসবুককে কাজে লাগিয়েছেন।

বাদী বুলবুল আহমেদ বলেন, 'করোনার জন্য ভৈরব এখন স্পর্শকাতর এলাকা। এখন পর্যন্ত ৪২ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ২১জন স্বাস্থ্যকর্মী এবং ৯ জন পুলিশের সদস্য। উপজেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটও আছেন আক্রান্তের তালিকায়। আমরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দিনরাত কাজ করছি। অথচ রুবেল এই বিষয়ে নিজের পত্রিকায় না লিখে মনের মতো করে ফেসবুকে লিখেছেন। এতে আমাদের কর্মীদের মনোবল নষ্ট হয়েছে। ফলে প্রতিকার পেতে আইনের আশ্রয় নিয়েছি।'

তবে পুলিশ হেফাজতে সাংবাদিক এম আর রুবেল বলেন, 'আমার লেখায় এতটুকু ভুল ছিল না। প্রতিহিংসারও কিছু ছিল না। মানুষের ভালোর কথা ভেবে লিখেছিলাম।'

ভৈরব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহিন বলেন, মামলটি হয়েছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৩১ ধারায়। রুবলেকে আজ (শুক্রবার ) সকালে কিশোরগঞ্জ কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন