বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ফুলপুরে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান দায়িত্ব নেওয়ার সাড়ে আট মাসের মাথায় গত বছরের জানুয়ারিতে তাঁর বিরুদ্ধে অনাস্থা জানান পরিষদের অধিকাংশ সদস্য। এই অনাস্থা নিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানদের মধ্যে প্রায় পাঁচ মাস দ্বন্দ্ব ও সমন্বয়হীনতা চলে। এ সময় বিভিন্ন প্রকল্পের প্রায় চার কোটি টাকা ফেরত যায়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এক ব্যক্তিকে বয়স্কভাতার কার্ড দেওয়া নিয়ে বিরোধের সূত্রপাত হয়। পরে ঘটনা অন্য দিকে মোড় নেয়। উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনার পেছনে সাংসদের লোকজনের ইন্ধন ছিল বলে অভিযোগ রয়েছে। উপজেলার দুজন ইউপি চেয়ারম্যান নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রথম আলোকে বলেন, অনাস্থা প্রস্তাবে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ ছিল না। লিখিত কাগজে তাঁদের কাছ থেকে স্বাক্ষর নেওয়া হয়। উপজেলার সভায় উপস্থিত না থাকতেও তাঁদের বলে দেওয়া হয়। কয়েক মাস এভাবে চলার পরে সদস্যরা অনাস্থা প্রস্তাব তুলে নেন।

চেয়ারম্যানের কাজ করেন ইউএনও

উপজেলা পরিষদ আইনে ১২টি মন্ত্রণালয়ের ১৭টি বিভাগকে স্থানীয় পর্যায়ে উপজেলা পরিষদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। কিন্তু বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগ পরিপত্রের মাধ্যমে কমিটি তৈরি করে এগুলোর সভাপতি ও আহ্বায়ক করেছে ইউএনওদের।

উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউল করিম বলেন, ১৭টি সংস্থারকাজে সমন্বয় করার কথা থাকলেও তা হয় না। ইউনিয়ন পরিষদগুলোর নিয়ন্ত্রক হওয়ার কথা উপজেলা চেয়ারম্যানের। সেটা হচ্ছে না। পরিষদকে ইউএনওর সাচিবিক সহায়তা দেওয়ার কথা, অথচ আর্থিক ও প্রশাসনিক ক্ষমতা তাঁর কাছেই।

অবশ্য এ ক্ষেত্রেও এই চিত্র শুধু ফুলপুরে নয়, সারা দেশের। বাংলাদেশ উপজেলা পরিষদ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি হারুন-অর-রশীদ হাওলাদার প্রথম আলোকে বলেন, বিভিন্ন দপ্তরের নথি অনুমোদনের জন্য ইউএনওর মাধ্যমে উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে উপস্থাপন করতে হবে, এ–সংক্রান্ত বিধি ও প্রজ্ঞাপন বাস্তবায়নের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। এই নির্দেশ দ্রুত কার্যকর করতে হবে।

ভাইস চেয়ারম্যানরা ক্ষমতাহীন

উপজেলা পরিষদের কাজ ভালোভাবে সম্পন্ন করার জন্য ১৭টি স্থায়ী কমিটি রয়েছে। এসব কমিটির আহ্বায়ক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানরা। ফুলপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রোকেয়া পারভীন প্রথম আলোকে বলেন, ক্ষমতা না থাকায় ভাইস চেয়ারম্যান পদটা কার্যত আলংকারিক হয়ে গেছে।

ফুলপুরে উপজেলা পরিষদ ভবনের নিচতলার দুই পাশে দুজন ভাইস চেয়ারম্যানের কক্ষ। সামাজিকতা রক্ষা ছাড়া ভাইস চেয়ারম্যানদের বেশির ভাগ সময়ই কাটে অবসরে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক ফেরদৌস আরফিনা ওসমান বলেন, জবাবদিহি, স্বচ্ছতা ও সমন্বয় নিশ্চিত করা কমিটিগুলোর দায়িত্ব। প্রয়োজনে উপজেলা পরিষদে কমিটির সংখ্যা কমিয়ে আরও কার্যকর করা দরকার।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন