বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে গত ২৫ মার্চ রাজধানীর মতিঝিল এলাকায় বিক্ষোভ ও সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছিল। ওই সময় ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের ৫৬ জন নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ। এঁদের কেউ কেউ ইতিপূর্বে জামিনে মুক্তি পেয়েছেন।

গতকাল ২০ জনের জামিনের শুনানির সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক। জাফরুল্লাহ চৌধুরী একজন মুক্তিযোদ্ধা ও নাগরিক হিসেবে কথা বলতে চাইলে আদালত তাঁকে অনুমতি দেন।

পরে জাফরুল্লাহ চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, ‘ আমি প্রথম বললাম মাননীয় বিচারপতি, এই ছাত্রদের কী অপরাধ? মাঠে-ময়দানে তারা স্লোগান দিতেই পারে। এটা পুলিশের মিথ্যাচার। তাদের হাতে কোনো লাঠি ছিল না। অতএব তারা পুলিশের ওপর কোনো হামলা করতে পারে না। আজকে কথা বলা আমাদের নাগরিক অধিকার, ছাত্ররা সেটাই করেছে। তাই আপনি সবকিছু বিবেচনা করে দেখেন এদের কী বিচার হওয়া উচিত।’

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন