default-image

অভ্যন্তরীণ বিরোধকে কেন্দ্র করে গতকাল রোববার দুপুরে চট্টগ্রামের হাজী মুহাম্মদ মহসিন কলেজে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে হঠাৎ উত্তেজনা দেখা দেয়। বেলা আড়াইটার দিকে কলেজের প্রধান ফটকের সামনে দুপক্ষ মুখোমুখি অবস্থান নেয়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী এবং সাধারণ সম্পাদক ও সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারীদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।
গতকাল বেলা তিনটার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, কলেজের প্রধান ফটকের সামনে মহিউদ্দিন চৌধুরীর এবং ফটকের উত্তর পাশে আ জ ম নাছিরের অনুসারীরা অবস্থান নিয়েছেন। উভয় পক্ষই পাল্টাপাল্টি স্লোগান দিতে থাকে। দুই পক্ষের মাঝখানে অবস্থান নেয় পুলিশ। তারা কোনো পক্ষকেই সামনের সড়কে নামতে দেয়নি। বেলা সোয়া তিনটায় দুই পক্ষকে সরিয়ে দেওয়া হয়।
মহিউদ্দিন চৌধুরীর অনুসারী ছাত্রলীগের নেতা মায়মুন উদ্দীন মামুন প্রথম আলোকে বলেন, ক্যাম্পাসে তাঁদের জ্যেষ্ঠ কর্মী ও উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের স্নাতকোত্তরের ছাত্র কাজী নাঈম ও তাঁর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন মেয়রের অনুসারী স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র রবিউল ওয়াহাব। এর প্রতিবাদ জানাতে তাঁরা কলেজের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নেন।
অন্যদিকে চট্টগ্রামের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী এনাম হোসেন চৌধুরী দাবি করেন, মহিউদ্দিন চৌধুরীর কয়েকজন অনুসারী ফেসবুকে তাঁদের নেতা (আ জ ম নাছির) সম্পর্কে অপপ্রচার চালাচ্ছেন। রোববার এর প্রতিবাদ করলে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। অবশ্য অপপ্রচারের ধরন সম্পর্কে জানাতে পারেননি তিনি।
চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নুরুল হুদা প্রথম আলোকে জানান, ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হলেও মারামারি কিংবা হাতাহাতির কোনো ঘটনা ঘটেনি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন