চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রশিবিরের এক নেতাকে মারধর করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের একাংশের নেতা-কর্মীরা। গতকাল রোববার বেলা একটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার ভবনের সামনে এ ঘটনা ঘটে।
ছাত্রশিবিরের ওই নেতার নাম মীর হোসেন। তিনি ইসলামিক শিক্ষা বিভাগের স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থী ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রশিবিরের ছাত্রকল্যাণবিষয়ক সম্পাদক।
বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রশিবিরের সাধারণ সম্পাদক রাজিফুল হাসান প্রথম আলোকে বলেন, ‘কোনো কারণ ছাড়াই মীর হোসেনকে ছুরিকাঘাত করেছে ছাত্রলীগের অস্ত্রধারী ক্যাডাররা।’ ছাত্রলীগের কর্মীদের হামলায় মীর হোসেনের এক পা ভেঙে গেছে দাবি করে তিনি আরও বলেন, ‘ছাত্রলীগ কয়েক দিন ধরে এ ধরনের ঘটনা ঘটাচ্ছে। প্রশাসন ব্যবস্থা না নিলে আমরা আমাদের মতো ব্যবস্থা নেব।’
বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর টিপু প্রথম আলোকে বলেন, ‘শিবিরের ওই নেতা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া নতুন শিক্ষার্থীদের তাদের দলে ভেড়াতে লিফলেট বিতরণ করেছিল। ক্যাম্পাসে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড নিষিদ্ধ থাকায় এর কারণ জানতে চায় আমাদের কর্মীরা। সে উল্টো কথা বললে হাতাহাতি হয়।’
বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মঈন উদ্দিন বলেন, ‘বিষয়টি জানার সঙ্গে সঙ্গেই আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে যাই। তবে ঘটনাস্থলে কাউকে পাইনি।’
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সিরাজ উদ দৌল্লাহ বলেন, ‘আহত শিক্ষার্থীর চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। উভয় পক্ষের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে।’
গত ১২ জানুয়ারি ছাত্রলীগ ও ছাত্রশিবিরের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ছাত্রশিবিরের এক নেতা নিহত হন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন