সীমান্ত চুক্তি বাস্তবায়নে ছিটমহলের বাসিন্দাদের নাগরিকত্ব নির্ধারণের ক্ষমতা ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার সাময়িকভাবে পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলা প্রশাসকের হাতে তুলে দিল। আগামীকাল সোমবার থেকে এই ক্ষমতা কার্যকর হবে। এ বছরের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে নাগরিকত্ব নির্ধারণের কাজ শেষ করতে হবে।
ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অন্তর্গত বিদেশি নাগরিক শাখার পরিচালক প্রবীণ হোরো সিং এই নির্দেশ কোচবিহারের জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠিয়েছেন। পরবর্তী ছয় মাসের মধ্যে ভারতের অভ্যন্তরে থাকা বাংলাদেশের ছিটমহলগুলোর বাসিন্দাদের কারা ভারতের নাগরিকত্ব নিতে চান ও কারা তা চান না, তা ঠিক করে ফেলতে হবে, যাতে সীমান্ত চুক্তির দ্রুত বাস্তবায়ন সম্ভবপর হয়।
নির্দেশে বলা হয়েছে, জেলা প্রশাসক ছিটমহলের বাসিন্দাদের কাছে থেকে তাদের পছন্দ লিখিতভাবে আদায় করবেন। ভারতের নাগরিকত্ব যারা নিতে আগ্রহী, তাদের জন্য একটা আলাদা খাতা তৈরি করতে হবে। তাতে তাদের নাম ও অন্য সব বিষয়ের উল্লেখ থাকবে। তেমনই যারা ভারতের নাগরিকত্ব চান না, তাদের জন্যও অন্য একটা খাতা করতে হবে। সব নাগরিকের নাম নথিভুক্ত হয়ে গেলে তা প্রকাশ করতে হবে। কারও সম্পর্কে কারও কোনো আপত্তি থাকলে তা একটা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে জানাতে হবে। সেই আপত্তি কতটা যৌক্তিক তা তদন্ত করার অধিকারও জেলা শাসককে দেওয়া হয়েছে। তারপরই কারা ভারতের নাগরিকত্ব পেতে চান ও কারা ছাড়তে চান সেই চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করতে হবে। চূড়ান্ত সেই তালিকা তারপর রাজ্য সরকারের মাধ্যমে কেন্দ্রকে পাঠাতে হবে।
এই তালিকা চূড়ান্ত হয়ে গেলেই পুনর্বাসনের ব্যবস্থা পাকা করা হবে। সেই সঙ্গে ছিটমহলগুলোর অবকাঠামো নির্মাণের কাজেও হাত দেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0