বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারি ইউনিয়নের যৌথখামারপাড়া গ্রাম পরিদর্শন করেছেন জেলা পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়। সেখানে জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি বলেন, জঙ্গিবাদের সঙ্গে বাইশারির আর কেউ জড়িত কি না, তা খুঁজে দেখা হচ্ছে। জঙ্গিবাদের সঙ্গে জড়িত কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। সন্ত্রাস, নাশকতা ও জঙ্গিবাদ দমনে এলাকার সবাইকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।
চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ও গুলিতে নিহত জঙ্গি কামাল হোসেন ও তাঁর স্ত্রী জুবাইরা ইয়াসমিনের বাড়ি যৌথখামারপাড়ায়। বাইশারি ইউনিয়ন সদর থেকে সাড়ে তিন কিলোমিটার দূরে পাহাড়ি এলাকায় গ্রামটির অবস্থান।
গতকাল রোববার দুপুরে যৌথখামারপাড়ায় গিয়ে জঙ্গি কামাল ও জুবাইরার পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন পুলিশ সুপার। এ ছাড়া চান্দিনা থেকে গ্রেপ্তার করা আরেক জঙ্গি হাসানের বাড়িতেও যান তিনি। পরে বেলা দেড়টার দিকে বাইশারি ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।
সভায় উপস্থিত ছিলেন বান্দরবানের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মাশরুফ হোসেন, নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি তৌহিদ কবির, বাইশারি তদন্তকেন্দ্রের উপপরিদর্শক আবু মুসা, বাইশারি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলম, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল হক, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন