জন্মদিন উদ্যাপন করতে যাওয়ার পথে মৃত্যু

বিজ্ঞাপন
default-image

ঢাকা কমার্স কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র ছিলেন কাব্য দাস। আজ ১১ আগস্ট (মঙ্গলবার) ছিল তাঁর জন্মদিন। বিশেষ এই দিনটি উদ্‌যাপনের জন্য চার বন্ধু মিলে তাঁরা যাচ্ছিলেন যশোরের গদখালী ফুলের রাজ্যে। দুটি মোটরসাইকেলে করে গন্তব্যে ছুটছিলেন তাঁরা।

গদখালী পৌঁছানোর আগেই একটি কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় প্রাণ হারান কাব্য দাস ও তাঁর বন্ধু কাজী মুশফিক মাহবুব। জন্মদিনে বন্ধু-স্বজনদের কাছ থেকে বাহারি উপহারের বদলে কাব্যের কপালে জুটল মৃত্যু। মঙ্গলবার দুপুরে যশোর-বেনাপোল জাতীয় মহাসড়কে ঝিকরগাছা উপজেলার বেনেয়ালি গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত কাব্য দাস (২৫) যশোর শহরের মিশনপাড়া এলাকার জন দিলীপ দাসের ছেলে। আর শহরের সার্কিট হাউসপাড়ার মাহবুবুল হকের ছেলে কাজী মুশফিক মাহবুব (২৫)। তাঁরা একই মোটরসাইকেলের আরোহী ছিলেন। কাব্য ঢাকা কমার্স কলেজের সম্মান প্রথম বর্ষ ও মুশফিক মাগুরার একটি কলেজে সম্মান প্রথম বর্ষের ছাত্র ছিলেন।

মুশফিক ও কাব্যের সঙ্গে থাকা অপর বন্ধু আবদুল্লাহ আমান বলেন, ‘মঙ্গলবার কাব্য দাসের জন্মদিন ছিল। তাঁর জন্মদিন এবার গদখালীর ফুলের রাজ্যে উদ্‌যাপনের ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলাম। সে রাজি হয়ে যায়। সেখানে গিয়ে বাগানে সদ্য ফোটা ফুল দিয়ে বন্ধুকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানোর ইচ্ছা ছিল আমাদের। ফুলবাগানে গিয়ে ছবি তুলব, হইহুল্লোড় করব, কত কিছু করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তা আর হলো না। একটি কাভার্ড ভ্যান কাব্য ও মুশফিকের মোটরসাইকেলকে চাপা দিয়ে চলে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তারা দুজন মারা যায়।’ তিনি জানান, দুটি মোটরসাইকেলে করে তাঁরা চার বন্ধু যাচ্ছিলেন। বেনেয়ালি এলাকায় পৌঁছালে পেছনে হঠাৎ শব্দ শুনতে পান তাঁরা। তাকিয়ে দেখেন কাব্য ও মুশফিক সড়কে লুটিয়ে পড়ে আছেন। একটি কাভার্ড ভ্যান তাঁদের চাপা দিয়ে চলে গেল।

ঝিকরগাছা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাঈদুজ্জামান বলেন, বেপরোয়া গতিতে আসা একটি কাভার্ড ভ্যান মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিয়ে চলে গেছে। এতে দুজন নিহত হয়েছেন। ওই কাভার্ড ভ্যানের হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন