বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শুনানি নিয়ে আদালত আবেদনকারী পক্ষকে (মা) ২৩ জানুয়ারির মধ্যে নিয়মিত লিভ টু আপিল করতে বলেন।

এ ছাড়া আপিল বিভাগের ইতিপূর্বের আদেশ (১৫ ডিসেম্বর) সংশোধন চেয়ে শিশুদের বাবার করা আবেদনটি নথিভুক্ত রেখেছেন আদালত।

আদালতে মায়ের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী আহসানুল করিম ও আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির।

অন্যদিকে, ইমরানের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ফাওজিয়া করিম।

শিশুদের মা ও বাবা আজ আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

২০০৮ সালের ১১ জুলাই এরিকো ও ইমরানের বিয়ে হয়, তাঁদের তিন মেয়েসন্তান রয়েছে।

গত বছরের ১৮ জানুয়ারি এরিকোর সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের আবেদন করেন ইমরান। এরপর ২১ ফেব্রুয়ারি দুই মেয়েকে নিয়ে বাংলাদেশে চলে আসেন তিনি।

পরে ছোট মেয়েকে তার নানির কাছে রেখে গত ১৮ জুলাই বাংলাদেশে আসেন এরিকো। ইমরানের কাছ থেকে ১০ ও ১১ বছর বয়সী দুই মেয়েশিশুকে ফিরে পেতে ঢাকায় এসে ১৯ আগস্ট রিট করেন তিনি। পরে ছোট মেয়েকে ফিরে পেতে আরেকটি রিট করেন ইমরান।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন