বিশিষ্ট লেখক ও অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবালকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) দেখতে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ সোমবার বেলা পৌনে একটার দিকে সেখানে যান তিনি।

আধা ঘণ্টার বেশি সময় সিএমএইচে অবস্থান করেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময় তিনি জাফর ইকবাল ও তাঁর স্ত্রী ইয়াসমিন হকের সঙ্গে কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী চিকিৎসাধীন জাফর ইকবালের শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নেন।

default-image

আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর) সহকারী পরিচালক রেজাউল করিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী  জাফর ইকবালের চিকিৎসার খোঁজখবর নেন। এ ছাড়া জাফর ইকবাল ও তাঁর স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে বেলা দেড়টার দিকে সিএমএইচ ত্যাগ করেন তিনি।

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে গত শনিবার বিকেলে এক অনুষ্ঠানে দর্শকসারিতে থাকা জাফর ইকবালের পেছন থেকে তাঁর ওপর ফয়জুর রহমান নামের এক যুবক ছুরি দিয়ে হামলা চালায়। হামলার পর রক্তাক্ত অবস্থায় জাফর ইকবালকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তাঁর শরীরে ছয়টি আঘাত আছে। তবে তিনি শঙ্কামুক্ত।

default-image

গতকাল রোববার ব্রিফিংয়ে সিএমএইচের কনসালট্যান্ট সার্জন মেজর জেনারেল মুন্সী মুজিবুর রহমান বলেন, অধ্যাপক জাফর ইকবালের মাথায় চারটি, পিঠের ওপরে ও বাঁ হাতে একটি করে আঘাত আছে। সব মিলিয়ে তাঁর শরীরে মোট ছয়টি আঘাত আছে। তিনি এখন শঙ্কামুক্ত। তাঁর মানসিক অবস্থাও ভালো।

মুন্সী মুজিবুর রহমান বলেন, অধ্যাপক জাফর ইকবালের চিকিৎসায় পাঁচ সদস্যের একটি বোর্ড গঠন করা হয়েছে। সংক্রমণ রোধে এবং দ্রুত আরোগ্যের জন্য এখন তাঁর কাছে কাউকে যেতে দেওয়া হচ্ছে না।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0