বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আদালতে জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী জেড আই খান পান্না, মোমতাজ উদ্দিন ফকির, আহমদ নকিব করিম ও সৈয়দ ফজলে এলাহী। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ মো. মোরশেদ, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. বশির উল্লাহ ও আমিন উদ্দিন।

পরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. বশির উল্লাহ প্রথম আলোকে বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় হাইকোর্ট হেলেনা জাহাঙ্গীরের জামিন আবেদনটি উত্থাপিত হয়নি বলে খারিজ করে দিয়েছেন। অর্থাৎ, তাঁকে জামিন দেননি। ফলে তাঁকে কারাগারেই থাকতে হচ্ছে।

ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে মিথ্যাচার, অপপ্রচার ও বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়ে রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা ও ব্যক্তিদের সম্মানহানি করার অভিযোগে গত ২৯ জুলাই হেলেনা জাহাঙ্গীরকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। তাঁর বাসা থেকে বিদেশি মদ, ক্যাসিনো সরঞ্জাম, ওয়াকিটকি ও বিদেশি চাকু উদ্ধার করা হয় বলে র‍্যাবের পক্ষ থেকে বলা হয়।

এরপর হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে পৃথক চারটি মামলা হয়। এর মধ্যে গুলশান থানার মাদক আইনের মামলা, পল্লবী থানার প্রতারণাসংক্রান্ত মামলা ও টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় হেলেনা জাহাঙ্গীর নিম্ন আদালত থেকে জামিন পেয়েছেন বলে তাঁর আইনজীবী জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন