default-image

জাম্বিয়ার সেনাবাহিনী আর্মি কমান্ডারের আমন্ত্রণে সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ সে দেশ সফরে রয়েছেন। তিনি আজ মঙ্গলবার জাম্বিয়া ন্যাশনাল সার্ভিস কমান্ড্যান্টের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। তিনি সেনাবাহিনীর প্রধান, জাম্বিয়া সশস্ত্র বাহিনীর জ্যেষ্ঠ অন্য নেতাদের সঙ্গেও বৈঠক করবেন। জাম্বিয়া সশস্ত্র বাহিনীর বিভিন্ন প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করবেন।

গতকাল সোমবার জেনারেল আজিজ আহমেদ জাম্বিয়ার ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওয়েজি লুখেলের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক বৈঠক করেন।

আইএসপিআরের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ে আলোচনার সময় দুই দেশের মধ্যে পারস্পরিক সামরিক সহযোগিতা ও সম্পর্কের বিষয়টি তুলে ধরা হয়। জাম্বিয়ার ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওয়েজি লুখেলে বলেন, বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সঙ্গে তিনি উন্নত সম্পর্ক স্থাপনে আগ্রহী। তিনি বাংলাদেশের সঙ্গে নিবিড়ভাবে কাজ করার জাম্বিয়া সরকারের অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন এবং বাংলাদেশের কৃষিক্ষেত্রের দক্ষতার সহায়তা নেওয়ার আগ্রহের কথা জানান।

বিজ্ঞাপন

পরে জেনারেল আজিজ আহমেদ সেনা সদর দপ্তরে কমান্ডার, জাম্বিয়া আর্মি, লেফটেন্যান্ট জেনারেল উইলিয়াম মাইপাম্বে সিকাজওয়ের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। তিনি বলেন, দুই দেশের সেনাবাহিনী সামরিক কার্যক্রম বাড়াতে সচেষ্ট হবে, যা উভয়ের জন্য উপকারী হবে।

জেনারেল আজিজ আহমেদ জাম্বিয়া সেনাবাহিনীর সঙ্গে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম বিনিময় সুসংহত করার ও জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা, সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলা, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রভৃতি ক্ষেত্রে সাবজেক্ট ম্যাটার এক্সপার্ট এক্সচেঞ্জ (এসএমইই) প্রোগ্রাম পরিচালনা করার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। জেনারেল আজিজ আহমেদ সামরিক বাহিনীর সদস্যদের জন্য জাম্বিয়ায় অন অ্যারাইভাল ভিসার বিষয়টিও তুলে ধরেন। জেনারেল সিকাজওয়ে আশ্বাস দেন, এটিকে শিগগিরই সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের জন্য তিনি উদ্যোগ গ্রহণ করবেন।

বিকেলে জেনারেল আজিজ আহমেদ বিমানবাহিনীর সদর দপ্তরে জাম্বিয়া এয়ারফোর্সের ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার মেজর জেনারেল বেনেডিক্ট টি কালিন্ডার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। মেজর জেনারেল কালিন্দা বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর সহযোগিতার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি জাম্বিয়া এয়ারফোর্সের কর্মকর্তা ও সদস্যদের বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণের সম্ভাবনা তুলে ধরেন।

জেনারেল আজিজ আহমেদ জাম্বিয়া এয়ারফোর্সের কর্মকর্তা ও সদস্যদের বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর বিভিন্ন প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণ নেওয়ার ইচ্ছাকে স্বাগত জানিয়ে আশা করেন, ভবিষ্যতে দুই সশস্ত্র বাহিনীর মধ্যে সম্পর্ক আরও বৃদ্ধি পাবে।
সফরকালে বাংলাদেশ সেনাপ্রধানকে জাম্বিয়ার সেনাবাহিনী ও বিমানবাহিনীর দুইটি চৌকস দল গার্ড অব অনার ও লাল গালিচা সংবর্ধনা দেয়।

৬ মে জেনারেল আজিজ আহমেদের বাংলাদেশে ফেরার কথা রয়েছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন