ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এনামুল কবিরসহ দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চারটি কমিটি গঠন করেছে পুলিশ। গতকাল রোববার সকাল থেকে তাঁদের চট্টগ্রাম নগরের কোতোয়ালি থানা ভবনে জিজ্ঞাসাবাদ করা শুরু হয়েছে। এর আগে ওই দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গত শনিবার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আদালত।
গত শুক্রবার শিবিরের কেন্দ্রীয় নেতা এনামুল কবির, চট্টগ্রাম মহানগর (উত্তর) শাখার পাঠাগার সম্পাদক মোহাম্মদ মোস্তফা ও জামায়াতের দেওয়ানবাজার ওয়ার্ড শাখার অর্থ (বায়তুল মাল) সম্পাদক মুশফিক আবরার মাহিনকে চট্টগ্রামে গ্রেপ্তার করা হয়।
আদালত-সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গত শনিবার মুশফিক আবরার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।
পুলিশ সূত্র জানায়, এনামুল ও মোস্তফাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার মোহাম্মদ হাছান চৌধুরী, অতিরিক্ত উপকমিশনার (পশ্চিম) এস এম তানভীর আরাফাত, অতিরিক্ত উপকমিশনার (বন্দর) মোস্তাক আহমেদ ও কোতোয়ালি অঞ্চলের সহকারী কমিশনার শাহ মো. আবদুর রউফের নেতৃত্বে চারটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। চারটি কমিটির কার্যক্রম সমন্বয় করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার কুসুম দেওয়ানকে।
মোহাম্মদ হাছান চৌধুরীর নেতৃত্বে গঠিত কমিটির সদস্যরা শিবিরের এই দুই নেতাকে গতকাল দিনভর জিজ্ঞাসাবাদ করেন। জিজ্ঞাসাবাদে তাঁরা কী তথ্য দিয়েছেন, তা জানাতে অস্বীকৃতি জানান পুলিশ কর্মকর্তারা।
চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার বনজ কুমার মজুমদার প্রথম আলোকে বলেন, ‘এনামুল কবির শিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতির বার্তা নিয়ে চট্টগ্রামে এসেছিলেন। অনেকগুলো স্পর্শকাতর স্থাপনায় তাঁদের হামলা চালানোর পরিকল্পনা ছিল। নাশকতার সঙ্গে কাদের সম্পৃক্ত করার পরিকল্পনা ছিল, সেই তথ্য আমরা বের করার চেষ্টা করছি।’

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন