default-image

সেন্ট মার্টিনে পর্যটন মৌসুমে ভ্যান চালিয়ে ভালোই আয় হয় নুরুল আমিনের (৩০)। কিন্তু টানা হরতাল–অবরোধে পর্যটক আসা বন্ধ হওয়ায় বেকার হয়ে পড়েছেন তিনি। ছয় সদস্যের পরিবারে তিনিই একমাত্র উপার্জনক্ষম মানুষ। পরিবারের সদস্যদের দুবেলার খাবারে টান পড়েছে। চিকিৎসা হচ্ছে না অসুস্থ বাবার।
সড়কে অবরোধের পাশাপাশি টেকনাফ-সেন্ট মার্টিন নৌপথে চলছে না জাহাজ। ফলে ভরা মৌসুমেও এখন পর্যটক নেই দেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপটিতে। এ কারণে নুরুল আমিনের মতো দ্বীপের প্রায় দুই হাজার শ্রমিক এখন বেকার দিন কাটাচ্ছেন। তিনি জানান, তাঁর মতো ৩০০ ভ্যানগাড়ির চালকের এখন কোনো কাজ নেই। পাশাপাশি বেকার হয়ে পড়েছেন, দোকানদার, ডাব বিক্রেতা ও হোটেল–মোটেলের কর্মচারীরা।
৫ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার সরেজমিনে দেখা যায়, টেকনাফের দমদমিয়া ঘাটে আটটি জাহাজ নোঙর করে রাখা হয়েছে। যাত্রী না থাকায় গত এক মাস কোনো জাহাজ ছাড়েনি। সেন্ট মার্টিনে পৌঁছেও একই চিত্র চোখে পড়েছে। জেটিঘাটের পার্কিং এলাকায় প্রায় সারি করে রাখা হয়েছে ৩০০ রিকশাভ্যান। প্রায় সব আবাসিক হোটেল, কটেজ ও রেস্তোরাঁয় ঝুলছে তালা। কয়েকটি চালু থাকলেও শ্রমিকসংখ্যা কমিয়ে আনা হয়েছে।
ডাব বিক্রেতা ফরিদ আলম (২৮) সেন্ট মার্টিনের পূর্বপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। পর্যটক না আসায় তিনিও বেকার হয়ে পড়েছেন। তিনি বলেন, ‘এই মৌসুমের আয় দিয়ে সারা বছর চলি আমরা। এভাবে চলতে থাকলে তো না খেয়ে থাকতে হবে।’
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অবরোধ ও হরতালের শুরুর আগের দিনও সেন্ট মার্টিনে ৩৮টি আবাসিক হোটেল, ৮১টি কটেজ-বাংলো, ১০৫টি ছোট-বড় রেস্তোরাঁ খোলা ছিল। এসব প্রতিষ্ঠানে প্রায় দুই হাজার শ্রমিক কর্মরত ছিলেন। অবরোধ শুরুর পর এঁদের প্রায় সবাই বেকার জীবনযাপন করছে।
শ্রমিক মনির উল্লাহ ও সরওয়ার কামাল বলেন, ‘টানা অবরোধ ও হরতালে একজন পযর্টকও আসেননি। অথচ প্রতিদিন মালিকের খরচ হচ্ছে তিন হাজার টাকার মতো।’
পযর্টক জাহাজ কেয়ারি সিন্দাবাদের ব্যবস্থাপক মো. শাহ আলম জানান, পর্যাপ্ত পর্যটক না থাকায় চলতি ৫ জানুয়ারি থেকে এ নৌপথে জাহাজ চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে দৈনিক মজুরিতে কর্মরত আটটি জাহাজের প্রায় শতাধিক শ্রমিক বেকার হয়ে পড়েছেন।
সেন্ট মার্টিন ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল আমিন জানান, পর্যটক না থাকায় দ্বীপের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট হোটেল-মোটেল, কটেজ, রেস্তোরাঁ, ভ্যানগাড়ি ও জাহাজের শ্রমিকের আয়-রোজগার বন্ধ হয়ে গেছে।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন