বিজ্ঞাপন

টেকনাফ উপজেলা  স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এবং উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক টিটু চন্দ্র শীল বলেন,  আইসোলেশন সেন্টার থেকে করোনা রোগী পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা খুবই দুঃখজনক। কারণ, ওই রোগী যেদিকে যাবেন, সেদিকে লোকজন আক্রান্ত হতে পারেন। তাঁর বাবার নাম খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে। পালিয়ে যাওয়া রিয়াজ উদ্দিনের স্ত্রীর নাম শারমিন আক্তার। রোগীর বড় ভাই মোহাম্মদ ইলিয়াছ। তাঁর পরিবারে আড়াই বছরের একটি শিশুসন্তান রয়েছে। শিশুর জন্য তাঁর মন খারাপ লাগত বলে একাধিকবার জানিয়েছিলেন।

টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা টিটু চন্দ্র শীল আরও বলেন, রিয়াজ উদ্দিন আইসিডিডিআরবির আইসোলেশন সেন্টার থেকে পালিয়ে গেছে। ওই ব্যক্তির কোনো ধরনের সন্ধান পেলে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবুল মনসুরের সঙ্গে অথবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরি ভিত্তিতে যোগাযোগ করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন