default-image

যাত্রীবাহী প্রতিটি ট্রেনে নারীদের জন্য নির্দিষ্ট কামরা বরাদ্দ রাখতে নির্দেশনা চেয়ে একটি রিট হয়েছে।

গতকাল বুধবার আইনজীবী মমতাজ পারভীন আবেদনকারী হয়ে রিটটি করেন। আগামী সপ্তাহে হাইকোর্টে শুনানির জন্য রিটটি উপস্থাপন করা হবে বলে জানান আবেদনকারীর আইনজীবী মো. আজমল হোসেন।

রেলওয়ে আইনের ৬৪ ও ১১৯ ধারা বাস্তবায়নে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা চ্যালেঞ্জ করে রিটটি করা হয়েছে বলেন জানান আজমল হোসেন।

বিজ্ঞাপন

আইনজীবী আজমল হোসেন আজ বৃহস্পতিবার প্রথম আলোকে বলেন, রেলওয়ে আইনের ৬৪ ধারা অনুসারে প্রতিটি ট্রেনে নারীদের জন্য নির্দিষ্ট কামরা থাকার কথা।

এমনকি ৫০ মাইলের বেশি ভ্রমণকারী ট্রেনের ক্ষেত্রে ওই কামরার সঙ্গে একটি শৌচাগার সংযুক্ত থাকার কথা বলা আছে আইনে। আর ওই কামরায় বিনা অনুমতিতে প্রবেশ করলে জরিমানার কথা বলা আছে ১১৯ ধারায়।

আজমল হোসেন বলেন, রেলওয়ে আইনের ৬৪ ও ১১৯ ধারায় বর্ণিত বিধানের বাস্তবায়ন দেখা যায় না। তাই রিটটি করা হয়েছে।

রিটে রেলসচিবসহ চারজনকে বিবাদী করা হয়েছে বলে জানান আইনজীবী আজমল হোসেন।

মন্তব্য করুন