বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাস–ট্রাকের মালিক–শ্রমিকদের দাবি, সরকার এ নিয়ে কারও সঙ্গে কোনো ধরনের আলোচনা ছাড়া কেরোসিনের দাম বাড়ানোয় তাঁদের না খেয়ে মরতে হবে। এ জন্য তাঁরা এর মূল্য কমিয়ে আনাসহ ভাড়া বৃদ্ধির দাবি করেন।

ঢাকা-চাঁদপুর রুটের পদ্মা পরিবহনের বাসচালক মো. রিপন বলেন, ‘আমরা করোনাকালে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় চরম কষ্টে ছিলাম। তখন আমাদের কেউ খোঁজখবরও নেয়নি। এখন আবার তেলের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। এতে আমাদের না খেয়ে থাকা ছাড়া উপায় থাকবে না।’

মোটর চালক লীগের কেন্দ্রীয় নেতা আনোয়ার গাজী বলেন, ‘আমরা পরিবহন সেক্টরে যারা আছি, আমাদের দাবি, তেলের দাম বাড়িয়েছে ভালো কথা, কিন্তু আমাদের ভাড়া বাড়িয়ে দিক সরকার। তা না হলে আমরা আন্দোলনে যাব।’

ট্রাকঘাটের ট্রাকশ্রমিক নেতা বাবুল খান বলেন, ‘তেলের দাম বাড়ায় মালিকদের ট্রাক চলাচল বন্ধ করা ছাড়া উপায় নেই। সরকার এ মুহূর্তে তেলের দাম বাড়িয়ে দিয়ে আমাদের ট্রাকশিল্পকে ধ্বংসের পথে নিয়ে গেছে।’

ট্রাক মালিক সমিতির পক্ষে সুজিত দাস বলেন, মার্কেটে ট্রাকভাড়া অনেক কমে গেছে। এর ওপর তেলের দাম বাড়ানোয় সাধারণ শ্রমিক শুধু নন, ট্রাকমালিকেরাও চরমভাবে ক্ষতির সম্মুখীন হবেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন