ঢাকা রামকৃষ্ণ মঠ ও রামকৃষ্ণ মিশনের শতবর্ষ পূর্তি উৎসব শুরু হয়েছে। গতকাল রোববার থেকে শুরু হয়ে উৎসব চলবে ২৬ মার্চ পর্যন্ত। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা গতকাল মিশন প্রাঙ্গণে উৎসবের উদ্বোধন করেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেন, ধর্মের কারণে সংঘাতে বিশ্বে যত প্রাণ ঝরেছে, তা সংখ্যায় প্রথম ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নিহতের সংখ্যার চেয়ে বেশি। সব ধর্মেই মানুষকে শ্রেষ্ঠ জীব বলা হয়েছে। তাই মানুষের কাজও সর্বোত্তম হওয়া উচিত। সমাজে নানা ধর্ম, গোত্র, সম্প্রদায়ের মানুষ বসবাস করে। সবার সহাবস্থানের মধ্য দিয়ে ঐক্য ও সংহতির মাধ্যমে মানবকল্যাণে কাজ করতে হবে। মানবতা বড় ধর্ম। সবাইকে মানবতার দিকে এগিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িকতার মধ্যে ধর্ম আবদ্ধ হতে পারে না।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেন, বাংলাদেশে রামকৃষ্ণ মিশনের সঙ্গে ভারতীয় হাইকমিশন গভীরভাবে সংযুক্ত। রামকৃষ্ণ মিশন দারিদ্র্য দূরীকরণ ও শিক্ষার বিস্তারে কাজ করে যাচ্ছে। এসব কাজে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে রামকৃষ্ণ মিশনে ভারতীয় সহযোগিতার কথা উল্লেখ করে হাইকমিশনার বলেন, বিভিন্ন মিশনে আরও ১৫ কোটি টাকার বিভিন্ন প্রকল্প নেওয়া হবে।
রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশন, বেলুড় মঠের সাধারণ সম্পাদক স্বামী সুহিতানন্দজি মহারাজের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বিচারপতি সৌমেন্দ্র সরকার, ঢাকা রামকৃষ্ণ মিশনের অধ্যক্ষ ধ্রুবেশানন্দ প্রমুখ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।
এর আগে বৈদিক মন্ত্র পাঠ ও প্রদীপ প্রজ্বালনের মাধ্যমে উৎসবের উদ্বোধন করা হয়। পাশাপাশি ছিল দলীয় নৃত্য। এই পরিবেশনার মধ্য দিয়ে তুলে ধরা হয় ধর্মীয় সম্প্রীতির বার্তা।
শতবর্ষ পূর্তির এই উৎসবের আগামী দিনগুলোতে থাকবে যুব সম্মেলন, মাতৃ সম্মেলন, আন্তধর্মীয় সম্প্রীতি সম্মেলন, জপযজ্ঞ, সম্প্রীতি শোভাযাত্রা, বিভিন্ন বিষয়ভিত্তিক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন