ঢাবি লিও ক্লাবের নতুন কমিটি

বিজ্ঞাপন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে লায়ন্স ইন্টারন্যাশনালের যুব সংগঠন লিও ক্লাবের নতুন কমিটি গঠিত হয়েছে। লিও ক্লাব অব ঢাকা ইউনিভার্সিটি কিংস নামের এই সংগঠনের সভাপতি হয়েছেন ২০১৭-১৮ সেশনের শিক্ষার্থী লিও-মো. শিহাব উদ্দিন এবং সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন ২০১৫-১৬ সেশনের শিক্ষার্থী লিও সাইফুল ইসলাম খান।

সংগঠনটির উপদেষ্টা লায়ন রবিউল ইসলাম নতুন কমিটির অনুমোদন দিয়েছেন। এর আগে ২৬ সদস্যের নতুন কমিটি চূড়ান্ত করে তা অনুমোদনের জন্য সুপারিশ করেন লিও ক্লাব অব ঢাকা ইউনিভার্সিটি কিংসের প্রধান উপদেষ্টা লায়ন আজহার মাহসুদ (পিএমজেএফ) এবং ফ্যাকাল্টি উপদেষ্টা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মেহেদি হাসান।

সংগঠন সূত্রে জানা যায়, ২৫ জুন ছিল প্রার্থীদের আবেদনের শেষ তারিখ। পরে ২৬ ও ২৭ জুন আগ্রাহী প্রার্থীদের ভাইভা অনুষ্ঠিত হয়। ভাইভা শেষে দুই দিন পরে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। নতুন এই কমিটি আগামী ২০২০-২১ সেশনে দায়িত্ব পালন করবে। ১ জুলাই থেকে এই কমিটি আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের কার্যক্রম শুরু করেছে। লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনালের নিয়ম অনুযায়ী লিও ক্লাব অব ঢাবি কিংসের বিভিন্ন কার্যক্রমের স্পনসর করবে লায়ন্স ক্লাব অব ঢাকা কিংস।

সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ছাড়াও সংগঠনটির পরিচালনা পর্ষদে রয়েছেন লিও রোমানা পাপড়ি (সদ্য সাবেক সভাপতি), লিও তামান্না আক্তার (সহসভাপতি), লিও শেখ ইসমাইল (সহসভাপতি), লিও আবদুল্লাহ আল মামুন (সহসভাপতি), লিও রেজওয়ানা শারমিন (যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক-এডমিন), লিও সা’দাত হোসেন (যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, প্রজেক্ট), লিও সোহরাব হোসেন (কোষাধ্যক্ষ), লিও নুসরাত মোড়ল (যুগ্ম কোষাধ্যক্ষ, অ্যাডমিন), লিও নারসিস সালাওয়া কাদের (যুগ্ম কোষাধ্যক্ষ, প্রজেক্ট), লিও মো. নুরুল হক (চেয়ারপারসন, প্রজেক্ট ও ফান্ড রাইজিং), লিও আয়শা সিদ্দিকা (অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাবের লিয়াজোঁ), লিও মাহবুব রহমান (চেয়ারপারসন, ব্র্যান্ডিং অ্যান্ড প্রমোশন), লিও কাওসার জাহান (চেয়ারপারসন, এলসিআই লিয়াজোঁ), লিও মো. সাগীর আহমেদ (টেইল টুইস্টার), লিও মো. নুরুল ইসলাম (টেমার), লিও রাজু আহমেদ (ক্লাব ট্রেইনার), লিও জান্নাত চৌধুরী (ডিরেক্টর, ইনফরমেশন অ্যান্ড টেকনোলজি), লিও মুক্তা আক্তার (ডিরেক্টর, ওমেন লিডারশিপ ডেভেলপমেন্ট), লিও সাদিয়া আফরীন (কো-অর্ডিনেটর, ট্রেইনিং অ্যান্ড ওয়ার্কশপ), লিও মো. নাঈম রেজা ভূঁইয়া (ডিরেক্টর, গেমস অ্যান্ড স্পোর্টস), লিও মারজাহান আক্তার (কো-অর্ডিনেটর, মেম্বারশিপ ডেভেলপমেন্ট), লিও এস এম রিফাইনুল হাসান (চেয়ারপারসন, এসডিজি বাস্তবায়ন), রিমা আক্তার (প্রোগ্রাম অ্যান্ড ইভেন্ট ডেকোরেশন), এবং মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনশিপ কো-অর্ডিনেটর হিসেবে আছেন লিও মো. তানভীর আহমেদ।

আজহার মাহমুদ বলেন, প্রতিনিয়ত পরিবর্তনশীল এই পৃথিবীতে টিকে থাকতে তরুণ প্রজন্মকে শুধু শিক্ষায় নয়, উন্নত মানুষ হিসেবেও তৈরি হতে হবে। নিজেদের তৈরি করতে হবে সব পরিবর্তনকে মোকাবিলা করে শক্তভাবে টিকে থাকার। সেই সঙ্গে নিজের কাজের জবাবদিহির করণে নিজেদের প্রস্তুত করতে হবে। আশা করি লিও ক্লাব অব ঢাকা ইউনিভার্সিটি কিংসে সবাই একসঙ্গে দেশের কল্যাণে কাজ করবে।

সংগঠনটির সদ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম খান বলেন, ১৯১৭ সালে যাত্রা শুরু করা আন্তর্জাতিক সংগঠন লায়ন্স ক্লাবের সহযোগী যুব সংগঠন হিসেবে লিও ক্লাব যাত্রা শুরু করে ১৯৫৭ সালে। বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৪০ দেশে এই ক্লাবের কার্যক্রম রয়েছে। এমন একটি সম্মানজনক ও আন্তর্জাতিকভাবে সুপরিচিত সংগঠনের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সম্পাদক হতে পেরে আমি আনন্দিত। নেতৃত্ব, দক্ষতা, সুযোগ—এই তিন লক্ষ্য সামনে রেখে তরুণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে আমরা সমাজের মানুষের পাশে দাঁড়াতে চাই।

ক্লাবের নয়া সভাপতি শিহাব উদ্দিন বলেন, লিও ক্লাব যেহেতু আন্তর্জাতিক মানের সংগঠন, তাই আমরা সংগঠনটিকে সেই নিয়ম-শৃঙ্খলা ও মান অনুযায়ী পরিচালনা করার চেষ্টা করব। আমরা স্বাধীন মত প্রকাশ এবং জ্ঞানচর্চার মাধ্যমে সদস্যদের আত্মোন্নয়নে কাজ করে যাব। আমাদের সেবামূলক কাজের মাধ্যমে সারা দেশে নিজেদের ভাবমূর্তি আরও বাড়াতে সোচ্চার থাকব।

প্রসঙ্গত, লিও ক্লাব হলো লায়ন্স ইন্টারন্যাশনালের যুব সংগঠন। লিও শব্দের অর্থ হলো নেতৃত্ব, দক্ষতা, সুযোগ। লিও ক্লাব তরুণদের সামাজিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে নেতৃত্ব বিকাশে সহযোগিতা করে। লিও ক্লাব লায়ন্স ক্লাবের ফান্ডের ওপর নির্ভরশীল। লিও ক্লাবের মেম্বাররা লিও নামে পরিচিত হয়। তারা সমাজে স্বাস্থ্যসেবা প্রদান, দারিদ্র্য বিমোচন, আত্মোন্নয়ন ইত্যাদি বিষয় নিয়ে কাজ করে থাকে। লিওরা ফান্ড সংগ্রহ প্রজেক্টের মাধ্যমে ফান্ড সংগ্রহ করতে পারে।


লেখক: শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন