default-image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোভিডকালীন ও কোভিড-পরবর্তী সময়ে তারল্যসংকটের দ্রুত সমাধানের ওপর জোর দিয়েছেন। একই সঙ্গে এই সময়ে ঋণের বোঝা লাঘবে সমন্বিত বৈশ্বিক পদক্ষেপ ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী গতকাল সোমবার ‘ইন্টারন্যাশনাল ডেবট আর্কিটেকচার অ্যান্ড লিকুইডিটি’র ওপর ‘ফাইন্যান্সিং ফর ডেভেলপমেন্ট ইন দ্য এরা অব কোভিড-১৯ অ্যান্ড বিয়ন্ড ইনিশিয়েটিভ’ শীর্ষক রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানদের এক ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে ভিডিও বার্তায় এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমান পরিস্থিতিতে ও কোভিড–পরবর্তী সময়ে তারল্যসংকট মোকাবিলা ও ঋণের বোঝা লাঘবে আমাদের উচ্চাভিলাষী ও সমন্বিত বৈশ্বিক কর্মপরিকল্পনা প্রয়োজন।’

বিজ্ঞাপন

তারল্য সরবরাহে ও ঋণ সমস্যা সমাধানে অধিকতর সাহসী ও সমন্বিত পদক্ষেপের প্রয়োজনীয়তার গুরুত্ব তুলে ধরাই এই উচ্চপর্যায়ের ভার্চ্যুয়াল বৈঠকের লক্ষ্য। ২০২০ সালে ফাইন্যান্সিং ফর ডেভেলপমেন্ট ইন দ্য এরা অব কোভিড-১৯ অ্যান্ড বিয়ন্ড ইনিশিয়েটিভের (এফএফডিআই) পৃষ্ঠপোষকতায় মহামারি থেকে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে সহায়তার লক্ষ্যে কর্মপরিকল্পনা ঠিক করতে অনুষ্ঠিত কয়েকটি বৈঠকের পর এই ভার্চ্যুয়াল বৈঠক অনুষ্ঠিত হলো।

শেখ হাসিনা ভিডিও বার্তায় আরও বলেছেন, ‘জি–৭, জি–২০ এবং ওইসিডির সদস্যদেশগুলোর কাছ থেকে আমাদের বলিষ্ঠ নেতৃত্ব প্রয়োজন।’ তিনি বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর জন্য উন্নত দেশ, মাল্টিলেটারেল ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকস (এমডিবিএস) এবং ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্সিয়াল ইনস্টিটিউশনসের (আইএফআইএস) উচিত বৃহৎ পরিসরে ও নতুন ‘স্পেশাল ড্রইং রাইটস’-এর মতো বরাদ্দের মাধ্যমে তারল্য বাড়ানো।
উপযুক্ত সংস্কারের জন্য আন্তর্জাতিক ঋণকাঠামো সংশোধনের প্রয়োজনীয়তার পরামর্শও দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, কোভিড-১৯ মহামারি দেখা দেওয়ার পর এক বছরের বেশি সময় অতিবাহিত হয়ে গেছে এবং বিশ্ব এখনো করোনার কারণে যে আর্থসামাজিক চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হয়েছে, তা কাটিয়ে উঠতে পারেনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোভিড-১৯ মোকাবিলায় তাঁর সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘বাংলাদেশে আমরা আমাদের জনগণের জীবন ও জীবিকার ওপর থেকে মহামারির বিরূপ প্রভাব হ্রাস করার সমন্বিত পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি।’ তিনি বলেন, সরকারের বিচক্ষণ ঋণ পলিসির কারণে চলমান মহামারি সত্ত্বেও বাংলাদেশ এখনো ভালোভাবে ঋণ পরিশোধ করে তার ‘ঋণ খেলাপি না হওয়ার’ সুনাম অক্ষুণ্ন রেখেছে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন