বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া দেলোয়ার মোহাম্মদ হোসেন দেশটির নাগরিকত্ব পেয়েছেন। তালেবানে যোগ দিতে ২০১৯ সালে তিনি থাইল্যান্ড হয়ে পাকিস্তান যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন বলে অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে।

আদালতে অভিযোগপত্রে বলা হয়, দেলোয়ার মোহাম্মদ হোসেন মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইয়ের একজন ‘গোপন তথ্যদাতাকে’ও দলে ভেড়াতে চেয়েছিলেন। তাঁকে নিয়েই পাকিস্তানে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন। পরে সেখান থেকে আফগানিস্তান গিয়ে তালেবানে যোগ দিতে চেয়েছিলেন তিনি। এফবিআইয়ের তথ্যদাতাকে দেলোয়ার বলেন, তিনি চান ‘আমেরিকা সরকারের সঙ্গে লড়াই এবং মৃত্যুর আগে কিছু কুফরকে হত্যা করতে।’

এ লক্ষ্যে দেলোয়ার মোহাম্মদ হোসেন যোগাযোগের কিছু সরঞ্জাম কিনেছিলেন এবং এফবিআইয়ের ওই তথ্যদাতাকে অস্ত্র কেনার জন্য অর্থ বাঁচাতে বলেছিলেন। করোনার সংক্রমণ পরিস্থিতিতে আদালত গত বছর এই বাংলাদেশি আমেরিকানকে গৃহবন্দী করে রাখার অনুমতি দেন।

এর আগে গত মাসে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসকে সহায়তার পরিকল্পনার দায়ে বাংলাদেশি-আমেরিকান দম্পতি শহিদুল গাফফার খান ও নাবিলা খানকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়। পেনসিলভানিয়ার বাসিন্দা গাফফারকে দেড় বছর এবং নাবিলাকে দুই বছর কারাদণ্ড দেন আদালত।

আমেরিকানদের প্রসিকিউটরদের ভাষ্যমতে, শহিদুল গাফফার খান ২০১৫ সালে বাংলাদেশে তাঁর রেখে যাওয়া সোনা বিক্রি করে এক ভাইকে অর্থ দিয়েছিলেন সিরিয়ায় গিয়ে আইএসে যোগ দেওয়ার জন্য। তাঁর আগে গত এপ্রিলে আকায়েদ উল্লাহ নামের আরেকজন বাংলাদেশিকে আইএসকে সমর্থনের দায়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন