রাজ্জাক ফকির হত্যা মামলা

তিন আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল, একজনের যাবজ্জীবন

বিজ্ঞাপন
default-image

ময়মনসিংহের তারাকান্দার ভ্যানচালক আবদুর রাজ্জাক ফকির হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত চার আসামির মধ্যে তিনজনের মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট। অপর এক আসামির সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।  
ওই মামলার ডেথ রেফারেন্স (মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন) ও আসামিদের করা আপিলের ওপর শুনানি শেষে সোমবার বিচারপতি সহিদুল করিম ও বিচারপতি মো. আখতারুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকা তিন আসামি হলেন, মীর জাহান, এমদাদুল হক ওরফে এনদা ও আনিসুর রহমান। আর জিয়ারুল হককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।  
আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বশির আহমেদ। আসামিপক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী এ কে এম ফজলুল হক খান, এস এম শাহজাহান, মনিরুজ্জামান রুবেল ও সাইফুল রহমান রাহি।
 

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংশ্লিষ্ট আইনজীবীর তথ্যমতে, ২০০৮ সালের ১৫ অক্টোবর রাতে ময়মনসিংহ-হালুয়াঘাট সড়কের তারাকান্দার মধুপুর বাজার থেকে মুরগি নিয়ে ময়মনসিংহের দিকে যাচ্ছিলেন ভ্যান চালক মো. আবদুর রাজ্জাক ফকির। পথে রাজ্জাকের ভ্যানের গতিরোধ করে আসামিরা তাঁকে মহাসড়কের পাশের ধানখেতে নিয়ে যায়। রাজ্জাকের কাছে থাকা ১৪ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে তাঁকে হত্যার পর মরদেহ ধানখেতে ফেলে রাখে। সেদিন রাতে ঘটনাস্থল থেকে আসামি মীর জাহানকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে স্থানীয়রা।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মীর জাহানের দেওয়া তথ্যমতে অপর আসামিদের সেদিন রাতেই আটক করা হয়। ঘটনার পরদিন নিহতের ভাই হজরত আলী ফকির বাদী হয়ে তারাকান্দা থানায় মামলা করেন। এই মামলায় ২০১৫ সালের ৪ মে বিচারক রায় দেন। রায়ে ওই চার আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। এরপর আসামিদের ডেথ রেফারেন্স (মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন) হাইকোর্টে আসে। পাশাপাশি আসামিরা পৃথক আপিল করেন। এসবের ওপর গত সপ্তাহে শুনানি শেষে সোমবার (৭ সেপ্টেম্বর) রায় দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আইনজীবী সাইফুল রহমান রাহি প্রথম আলোকে বলেন, ডেথ রেফারেন্স আংশিক মঞ্জুর করে হাইকোর্ট চার আসামির আপিল খারিজ করে রায় দিয়েছেন। তিন আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল এবং একজনের মৃত্যুদণ্ড কমিয়ে যাবজ্জীবন সাজা দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন