গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার আন্দার মানিক এলাকায় শিশু নাজমুল হোসেনকে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার দুই আসামি গতকাল মঙ্গলবার গাজীপুর বিচারিক হাকিমের আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।
আসামিরা হলেন নরসিংদীর বুদ্দামারা নতুন বাজার এলাকার মো. আলমগীর হোসেন (২১) ও দিনাজপুরের দর্জিপাড়া এলাকার ইয়াকুব আলীর স্ত্রী শাহনাজ বেগম (২৫)।
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, চাঁদপুরের নাজিম উদ্দিন দীর্ঘদিন ধরে স্ত্রী, পাঁচ মেয়ে ও একমাত্র ছেলে নাজমুল ইসলামকে নিয়ে কালিয়াকৈরের আন্দারমানিক পূর্বপাড়া এলাকার একটি বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। একই বাড়িতে ভাড়া থাকতেন যাত্রীবাহী পরিবহন স্কাইলাইনের শ্রমিক (হেলপার) আলমগীর হোসেন। পাশের কক্ষে থাকতেন কারখানার শ্রমিক ও শাহনাজ বেগম। বেশ কিছু দিন ধরেই আলমগীর ও শাহনাজের মধ্যে পরকীয়া চলছিল।
গত শনিবার বিকেলে নাজমুল শাহনাজের ঘরে গিয়ে দুজনকে একসঙ্গে দেখতে পায়। তাদের দেখে ফেলায় এবং অন্যদের বলে দেওয়ার ভয়ে শিশুটিকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়। পরে ঘরে থাকা শাহনাজের একটি ব্যাগের ভেতর লাশ ভরে রাখা হয়।
এ ঘটনায় আলমগীর, তাঁর বড় ভাই জাকির হোসেন ও শাহনাজকে গ্রেপ্তার করা হয়। এঁদের মধ্যে আলমগীর ও শাহনাজ গতকাল আদালতে জবানবন্দী দিয়েছেন। ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ততা না থাকায় জাকিরকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন