দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে দুই ভুয়া দাখিল পরীক্ষার্থী ও দায়িত্ব পালনে অবহেলা করায় দুই শিক্ষকের কাছ থেকে জরিমানা আদায় করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল শনিবার নবাবগঞ্জ আলিম মাদ্রাসা পরীক্ষাকেন্দ্রে এই ঘটনা ঘটে।
গতকাল রংপুরের তারাগঞ্জে বহিরাগত দুই শিক্ষার্থী দিয়ে পরীক্ষা দেওয়ানোর অপরাধে দুই মাদ্রাসা শিক্ষককে এক বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। অন্যের হয়ে পরীক্ষা দেওয়ার অপরাধে নবাবগঞ্জ উপজেলার হলাইজানা আলিম মাদ্রাসার ফাজিল শ্রেণির সানজিদা খাতুন এবং একই মাদ্রাসার আলিম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাছকিনা খাতুনকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। সানজিদা তার নিকটাত্মীয় পূর্ব ফতেহপুর মাদ্রাসার পরীক্ষার্থী লাবণী আক্তার ও তাছকিনা একই মাদ্রাসার ববি আক্তারের হয়ে পরীক্ষা দিচ্ছিল। পরীক্ষাকেন্দ্রে দায়িত্ব পালনে অবহেলার অপরাধে মতিহারা মহিলা দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক মনোয়ার হোসেনকে ৬ হাজার ২০০ ও হরিরামপুর বালিকা দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষিকা সাহারা খাতুনকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
তারাগঞ্জের ইউএনও কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সৈয়দপুর টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী হোমরা খাতুন ও মিফতাউল জাহান তারাগঞ্জের ফাজিলপুর রহিমিয়া সিদ্দিকিয়া দাখিল মাদ্রাসা থেকে দাখিল পরীক্ষায় অংশ নেয়। খবর পেয়ে ইউএনও গোলাম মওলা গতকাল তারাগঞ্জ ও/এ ফাজিল মাদ্রাসা পরীক্ষাকেন্দ্রে গিয়ে ওই দুই পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করেন। এই সময় বহিরাগত শিক্ষার্থীদের দিয়ে পরীক্ষা দেওয়ানোর দায়ে মাদ্রাসার সুপার আবদুল আউয়াল ও সহকারী শিক্ষক আবদুল মতিনকে এক বছর করে কারাদণ্ড দেন।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন