বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ফায়ার সার্ভিস সূত্র জানায়, অগ্নিঘাতকে গ্লোবাল পজিশনিং সিস্টেম (জিপিএস), ফগলাইটসহ আরও কিছু আধুনিক সরঞ্জাম না থাকায় সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার সুগন্ধা নদীতে এমভি অভিযান-১০-এ অগ্নিদুর্ঘটনার খবর পেয়ে অগ্নিঘাতক দ্রুত দুর্ঘটনাস্থলের উদ্দেশে যাত্রা করে, কিন্তু ঘন কুয়াশা ও দিক নির্ণয়যন্ত্র না থাকায় দপদপিয়ার কাছে কীর্তনখোলা নদীতে পথ হারিয়ে চরে আটকে যায়। এতে আভিযানিক দলটির দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে বেশি সময় লেগে যায়।

সূত্র জানায়, বরিশাল ও পটুয়াখালীর দুটি রিভার ফায়ার স্টেশনই তৃতীয় শ্রেণিভুক্ত। দুটি স্টেশন চলছে মাত্র ১৬ জন জনবল নিয়ে।

নৌযান খাতের উদ্যোক্তারা বলছেন, দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ফায়ার সার্ভিসের সক্ষমতা বৃদ্ধির বিষয়টি জরুরি হয়ে উঠেছে। বরিশাল, পটুয়াখালী রিভার ফায়ার স্টেশনকে প্রথম শ্রেণিতে উন্নীত করার পাশাপাশি আরও রিভার ফায়ার স্টেশন স্থাপন করা প্রয়োজন।

নৌযানের মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন যাত্রী চলাচল সংস্থার কেন্দ্রীয় সহসভাপতি সাইদুর রহমান বলেন, বরিশালসহ দক্ষিণাঞ্চলের প্রতিটি জেলা ছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে অবিলম্বে অত্যাধুনিক সরঞ্জামসহ রিভার ফায়ার স্টেশন স্থাপনের পাশাপাশি বিদ্যমান দুটি রিভার ফায়ার স্টেশনের আধুনিকায়নে উদ্যোগ নিতে হবে। তিনি বলেন, ‘অভিযান-১০ লঞ্চের ভয়াবহ অগ্নিদুর্ঘটনা ও প্রাণহানির পর এই প্রয়োজনীয়তা আমাদের আবার সেই গুরুত্বের সঙ্গে স্মরণ করিয়ে দিয়েছে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের বরিশাল বিভাগীয় উপপরিচালক মো. কামাল উদ্দীন ভূঁইয়া প্রথম আলোকে বলেন, ঘাটতির বিষয়গুলো তাঁরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন। যে নৌ ফায়ার ফাইটারটি আছে, পুরোনো হলেও কাজ চালিয়ে নেওয়া যাচ্ছে।

আরও দুজনের লাশ উদ্ধার

প্রতিনিধি, ঝালকাঠি জানান, অভিযান-১০ লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আরও দুজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার বিষখালী নদীর চর থেকে আবদুল হক (২৭) নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয়। তাঁর বাড়ি নরসিংদীর রায়পুরায়। এর আগে গতকাল সকাল সাড়ে আটটার দিকে ঝালকাঠি সদর উপজেলার কিস্তাকাঠি এলাকার বিষখালী নদীর চর থেকে অজ্ঞাতনামা এক নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়।

এদিকে লঞ্চে আগুনের ঘটনায় দগ্ধ শাহিনুর বেগম (৪৫) নামের এক নারী গতকাল রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে মারা গেছেন। এ নিয়ে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় মৃত ব্যক্তির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪৫।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন