default-image

সরকারি দলের জ্যেষ্ঠ সাংসদ মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশে মদ, জুয়া নিষিদ্ধ করেছিলেন। আর এ দেশে ক্যাসিনোর প্রবক্তা ছিলেন জিয়াউর রহমান। তাঁর ছেলে তারেক রহমান লন্ডনে নিজের আয়ের উৎস দেখিয়েছেন ক্যাসিনো।

আজ মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে মতিয়া চৌধুরী এসব কথা বলেন।

মতিয়া চৌধুরী বলেন, এ দেশে ক্যাসিনোর প্রবক্তা জিয়াউর রহমান। তিনি একদিকে সংবিধানে ‘বিসমিল্লাহ’ যুক্ত করেছেন, অন্যদিকে মদ, জুয়া, হাউজি, ‘লাকী খানের ঝাঁকি নৃত্য’ প্রচলন করেছেন।

বিএনপি হত্যা, ধ্বংস ও ষড়যন্ত্রের রাজনীতি করে—এমন অভিযোগ তুলে মতিয়া চৌধুরী দলটিকে আলোর পথে আসার আহ্বান জানান। বিএনপির উদ্দেশে তিনি বলেন, গণতন্ত্রের চর্চা করেন, রাজনীতি করেন, ষড়যন্ত্র বাদ দেন।

মতিয়া চৌধুরী বলেন, শেখ হাসিনা যখন ক্ষমতায় আসেন, তখন দেশের মানুষ কিছু পায়। তাঁর নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে চলছে। পাকিস্তান এখন সুইজারল্যান্ড নয়, বরং বাংলাদেশ হতে চায়।

সরকার–দলীয় আরেক সাংসদ মোশাররফ হোসেন বলেন, টেকসই উন্নয়নে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশ আজ বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে। প্রতিবছর বাজেটের আকার বাড়ছে। অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে বিশ্বের শীর্ষ পাঁচে বাংলাদেশ।

সাংসদ রুস্তম আলী ফরাজী বলেন, উন্নয়ন হলেও বৈষম্য বাড়ছে। এটি দূর করার উপায় ভাবতে হবে। ব্যাংকের টাকা লুট হয়ে হচ্ছে। অনেকে টাকা ঋণ নিয়ে ফেরত দিচ্ছে না। এই ঋণখেলাপিদের সঙ্গে একশ্রেণির আমলা, রাজনীতিবিদদের সম্পর্ক আছে। ব্যাংক থেকে ঋণ নেওয়া টাকা বিদেশে পাচার করা হচ্ছে। এ টাকায় মালয়েশিয়ায় সেকেন্ড হোম, কানাডায় বাড়ি করা হচ্ছে। দুর্নীতি ক্যানসারের মতো ছড়িয়ে গেছে। দুর্নীতি আর স্বজনপ্রীতি ঠেকানো না গেলে বৈষম্য কমানো যাবে না।

অন্যদের মধ্যে সরকারি দলের সিমিন হোসেন, সুবিদ আলী ভুঁইয়া, এস এম শাহজাদা, বিকল্পধারার সাংসদ আবদুল মান্নান প্রমুখ আলোচনায় অংশ নেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন