পথচারীবান্ধব পরিবেশ তৈরিতে উদাহরণ সৃষ্টির জন্য ধানমন্ডির সাতমসজিদ সড়ককে আদর্শ হিসেবে উন্নয়ন করা হবে। আজ রোববার ঢাকা দ‌ক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আনছার আলী খান এ ঘোষণা দেন।
ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন, পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন (পবা) এবং ওয়ার্ক ফর আ বেটার বাংলাদেশ ট্রাস্ট আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে আনছার আলী বলেন, ‘আমরা আমাদের শহরকে বসবাসযোগ্য হিসেবে তৈরি করতে কাজ করে যাচ্ছি। এক দিনেই এটি সম্ভব নয়, ধীরে ধীরে পর্যায়ক্রমে কাজ করলে এটি সম্ভব হবে। এ জন্য ধানমন্ডি সাতমসজিদ এলাকাকে মডেল হিসেবে নিয়ে কাজ করলে পরে তা অন্য এলাকাতেও কাজে লাগানো সম্ভব হবে।’
ঢাকা দ‌ক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সেমিনার কক্ষে ‘নিরাপদ ও স্বাচ্ছন্দে৵ হেঁটে যাতায়াত: আমাদের করণীয়’ শীর্ষক এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। পবার এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে।
সভায় ওয়ার্ক ফর আ বেটার বাংলাদেশ ট্রাস্টের ন্যাশনাল অ্যাডভোকেসি অফিসার মারুফ হোসেন প্রবন্ধ পড়ে শোনান। মূল প্রবন্ধে বিদ্যমান বিভিন্ন আইন ও নীতি মেনে চলা, হাঁটার পরিবেশ উন্নয়নে মানদণ্ড ও নির্দেশিকা তৈরি, পৃথক ডেস্ক করা, হকার নীতিমালা প্রণয়ন করা, জোরালো পার্কিং নীতিমালা করা, নিয়মানুযায়ী ফুটপাত নির্মাণসহ বিভিন্ন সুপারিশ করা হয়েছে। একই সঙ্গে পথচারীদের সচেতনতার বিষয়টিতে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।
সভায় বক্তারা পথচারীর নিরাপদ রাস্তা পারপারের জন্য প্রয়োজনীয় স্থানে জেব্রা ক্রসিং আঁকা এবং নিয়মিত রং করার জন্য পর্যাপ্ত বাজেট বরাদ্দ রাখার সুপারিশ করেন। ফুটপাতের ওপরে বিভিন্ন বিলবোর্ড, ব্যানার, পিলার রয়েছে, তা পথচারীর জন্য সহায়ক নয় উল্লেখ করে বক্তারা এই বিষয়গুলোতে সংশ্লিষ্টদের নজর দেওয়ার আহ্বান জানান।
সভায় ওয়ার্ক ফর আ বেটার বাংলাদেশ ট্রাস্টের পরিচালক সৈয়দ মাহাবুবুল আলম, পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের সদস্য এ কে এম সিরাজুল ইসলাম, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আশিকুর রহমান, পবার নেটওয়ার্কের সমন্বয়ক কামরুল আহসান খান, পবার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন