default-image

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় করোনাভাইরাস (কোভিড ১৯) আক্রান্ত রোগীদের বাড়িতে খাদ্য সহায়তা পাঠাচ্ছে উপজেলা প্রশাসন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) উদ্যোগে পাঠানো চাল, ডালসহ নানা খাদ্যপণ্যে ভর্তি এ বস্তাকে স্থানীয়রা বলছেন ‘ভালোবাসার থলে’।

ধুনট উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, উপজেলায় এক সপ্তাহের মধ্যেই একজন শিক্ষিকাসহ এ পর্যন্ত মোট ১১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের বাড়ি লাল পতাকা দিয়ে লকডাউন করা হয়েছে। ইউএনও রাজিয়া সুলতানা আক্রান্তদের বাড়িতে গিয়ে তাদের প্রতি সমবেদনা জানান। এ সময় তিনি মানসিকভাবে ভেঙ্গে না পড়ে মনোবল চাঙ্গা রেখে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য সবাইকে পরামর্শ দেন এবং তিনি পাশে আছেন বলে আশ্বস্ত করেন। পাশাপাশি পরিবারগুলোকে খাদ্য সহায়তা দেওয়ার উদ্যোগ নেন। ৭ দিনের খাদ্য সহায়তা হিসেবে তাদের জন্য ১০ কেজি করে চালের সঙ্গে ডাল, তেল, লবণ ও আলুসহ নানা পদের সবজি ভর্তি করে বস্তা পাঠানো হচ্ছে। স্থানীয়রা যাকে বলছেন ‘ভালোবাসার থলে’।

ইউএনও রাজিয়া সুলতানা প্রথম আলোকে বলেন, আজ বুধবার পর্যন্ত উপজেলায় ১১ জন করোনারোগী শনাক্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে একজন ইতিমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। দুজনকে বগুড়ার মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যরা বাড়িতেই চিকিৎসা নিচ্ছেন। ইউএনও জানান, এই ১১ পরিবারের মধ্যে নয়টি পরিবারকে খাদ্যপণ্য ইতিমধ্যে পাঠানো হয়েছে। অন্য দুজনের বাড়িতেও পাঠানো হচ্ছে। এই উদ্যোগ অব্যাহত রাখার চেষ্টা থাকবে।

উল্লেখ্য, সংক্রমণের শুরু থেকেই ধুনট উপজেলার জনগণকে করোনাভাইরাস মুক্ত রাখার জন্য বিভিন্ন সতর্কতামুলক পদক্ষেপ গ্রহণ করে চলেছেন ইউএনও রাজিয়া সুলতানা। তিনি বলেন, করোনাকালীন এ দুঃসময়ে আক্রান্তদের পাশে দাঁড়ানো তাঁর নৈতিক কর্তব্য। তিনি সেই কর্তব্য পালনের চেষ্টা করে যাচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন