নগরে ভালো নেতৃত্ব নেই: হোসেন জিল্লুর রহমান

বিজ্ঞাপন
default-image

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা হোসেন জিল্লুর রহমান বলেছেন, নগরে ভালো নেতৃত্ব নেই।আসলে কেউ নেতা হতে চান না, সবাই চান প্রশাসক হতে।কেবল পরিকল্পনা বাস্তবায়নকারী প্রশাসকদের দিয়ে নগরের উন্নয়ন সম্ভব নয়।
আজ বৃহস্পতিবার সকালে ‘নগরে স্থানীয় শাসনের রাজনীতি: পরিপ্রেক্ষিত ঢাকা মহানগর’বিষয়ক এক গোলটেবিল বৈঠকে হোসেন জিল্লুর রহমান এ কথা বলেন।ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব গভর্নেন্স স্টাডিজ (আইজিএস) ব্র্যাক সেন্টার ইনে এই গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে।
হোসেন জিল্লুর রহমান তিনটি কৌশলগত পরিসেবার কথা বলেন, যা নিশ্চিত করা খুব দরকার।পরিসেবাগুলো হলো নগরের ভূমি ব্যবস্থাপনা ও পরিকল্পনা, জনপরিবহনের মান বৃদ্ধি ও সন্ত্রাস নিয়ন্ত্রণ।তিনি বলেন, ছোট ও বড় পরিবর্তন দুটো একই সঙ্গে করতে হবে।নগর সরকারের যে ধারণা দেওয়া হয়েছে, তা ক্ষমতাকেন্দ্রিক এজেন্ডা।এতে মেয়রের ক্ষমতাই বৃদ্ধি পাবে।এর বিপরীতে ঢাকা শহরে ওয়ার্ডভিত্তিক সরকারব্যবস্থাও চালু করতে হবে।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা বলেন, গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দলগুলো গণতান্ত্রিক স্থানীয় সরকারের প্রধান প্রতিপক্ষ।স্থানীয় সরকারের প্রশ্নে চলমান রাজনৈতিক দর্শন চূড়ান্ত বিরোধী।রাজনৈতিক দলগুলো স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানগুলোকে আরও বেশি কেন্দ্রীভূত করতে চায়।স্বাধীন ও গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে দেখতে চায় না।সিটি করপোরেশনগুলোর গণতন্ত্রায়ন এই প্রতিষ্ঠানগুলোকে উপযোগী করে গড়ে তোলার জন্য খুব জরুরি।

বিশিষ্ট কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, জাতীয় রাজনীতির যা চরিত্র, স্থানীয় সরকারের চরিত্র এ রকমই হবে।ঢাকা শহর জাতীয় রাজনীতির স্বৈরতান্ত্রিকতার শিকার।

আলোচনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক আতাউর রহমান বলেন, সিটি করপোরেশনের নির্বাহী কর্মকর্তারা কেন্দ্রীয় সরকারের হয়ে কাজ করেন।স্থানীয় সরকারের স্বার্থ তাঁদের বিবেচ্য বিষয় না।

বৈঠকে আলোচনা করেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য হায়দার আকবর খান রনো, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদের স্থায়ী কমিটির সদস্য শিরিন আক্তার, তুহিন মালিক প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন