বাংলা সিনেমার কমন কিছু সংলাপ আছে, যেগুলো বর্তমান সরকারের মতোই অক্ষয়। ঢালিউড যত দিন আছে, এই সংলাপগুলোও তত দিন থেকে যাবে বলে আমাদের বিশ্বাস। সেই অক্ষয় ডায়লগগুলো যদি বাংলা সিনেমার না হয়ে ফেসবুকের হতো, তাহলে কেমন হতো?

সেলিব্রিটি, তুই আমার বাবাকে ব্লক করেছিস, তুই আমার মাকে ব্লক করেছিস, আমি তোকে ছাড়ব না, শয়তান!

মেম সাহেব, একটা কথা মনে রাখবেন, বড়লোকের আছে লাইক আর গরিবের আছে জাকারবার্গ!

ব্যাটা ছোটলোক, তোর জীবনের সব পোস্টের লাইকের সমান তো আমার মেয়ের একটা প্রোফাইল পিকচারের লাইক! আম–ফেসবুকার হয়ে সেলিব্রিটির দিকে হাত বাড়াস, এত্ত বড় সাহস তোর!

মা মা, আমি ফার্স্ট ক্লাস ফার্স্ট ফেসবুক সেলিব্রিটি হয়েছি! এই দেখো, পেপারে ছবি ছাপিয়েছে!
আজ তোর বাবা বেঁচে থাকলে ফেসবুকে একটা নোট লিখে ফেলত!

সাড়ে তিন লাখ লাইক দেনমোহর ধার্য করিয়া পোক চৌধুরীর কনিষ্ঠ পুত্র টাইমলাইন চৌধুরীর সঙ্গে স্ট্যাটাস মির্জার জ্যেষ্ঠ কন্যা কমেন্ট বানুর বিবাহে যদি রাজি থাকো তো বলো মা কনফার্ম!
কনফার্ম!

চৌধুরী সাহেব, আমরা আম–ফেসবুকার হতে পারি, কিন্তু মনে রাখবেন, আমরা ভুলেও কোনো লেখা কপি পেস্ট করি না!

হ্যান্ডসআপ! অটোলাইক নিজের পোস্টে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করবেন না!

তুই আমার লাইক-কমেন্ট পাবি, ইনবক্সে রিপ্লাই পাবি, তবু প্রোফাইল পিকচার পাবি না, শয়তান!
ওটাই তো চাই, সুন্দরী!

ডাক্তার সাহেব, আপনি যত লাইক চান আমি আপনাকে তার দ্বিগুণ, তিন গুণ, চার গুণ দেব, আপনি শুধু আমার প্রিয়াকে বাঁচিয়ে দিন, ডাক্তার সাহেব!
ছবি: প্রথম আলো ও সংগৃহীত

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন