নরসিংদীতে হাসপাতালে মারা যাওয়া ব্যক্তির করোনা 'পজিটিভ'

বিজ্ঞাপন
default-image

নরসিংদীতে জ্বর, শ্বাসকষ্ট নিয়ে জেলা হাসপাতালে মারা যাওয়া এক ব্যক্তির নমুনা পরীক্ষার ফল করোনা ‘পজিটিভ’ এসেছে। আজ শনিবার সকালে এ তথ্য জানান হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) এ এন এম মিজানুর রহমান।

মারা যাওয়া ওই ব্যক্তির নাম নজরুল ইসলাম আশরাফী (৭২)। তিনি সাত থেকে আট দিন জ্বর, ঠান্ডা-কাশিসহ বিভিন্ন উপসর্গে ভুগছিলেন। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে তাঁর তীব্র শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। এ অবস্থায় তাঁকে ১০০ শয্যাবিশিষ্ট জেলা হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তিনি মারা যান। নজরুল নরসিংদী শহরের ব্রাহ্মন্দী এলাকার মৃত রোস্তম আলী আশরাফীর ছেলে। তিনি একটি বস্ত্র কারখানার কর্মকর্তা ছিলেন।

আরএমও মিজানুর রহমান জানান, হাসপাতালে আনার সময় নজরুলের শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা ছিল মাত্র ৫৪ শতাংশ। যেখানে স্বাভাবিক মাত্রা ৯৫ শতাংশ। অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিতে বলা হয়েছিল। কিন্তু পরিবারের লোকজন তাঁকে সেখানে নিয়ে যেতে পারেননি। পরে এই হাসপাতালেই ভর্তির প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল। কিন্তু তা শেষ হওয়ার আগেই জরুরি বিভাগে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নজরুল মারা যান।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, নজরুল ইসলামের আরও কিছু শারীরিক জটিলতা ছিল। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিসে ভুগছিলেন। তিন দিন আগে সমস্যাটা আরও বেড়ে যায়। রক্তচাপও আশঙ্কাজনক মাত্রায় কমে গিয়েছিল।

নরসিংদীর সিভিল সার্জন মোহাম্মদ ইব্রাহিম বলেন, ‘করোনাভাইরাসের উপসর্গ থাকায় মৃত্যুর আগেই নজরুলের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষার ফলাফল গতকাল শুক্রবার রাতে আমরা হাতে পেয়েছি। তখনই জানতে পেরেছি, তিনি করোনাভাইরাসে সংক্রমিত ছিলেন। তাঁর পরিবারের সদস্যদের নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে। প্রতিবেদন না পাওয়া পর্যন্ত তাঁদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।’

এ নিয়ে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে নরসিংদীতে ২৮ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে সদর উপজেলার ১৮ জন, বেলাব ও রায়পুরা উপজেলায় ৩ জন করে, মনোহরদী উপজেলায় ২ জন এবং পলাশ ও শিবপুর উপজেলায় একজন করে রয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন