নাইকো দুর্নীতির মামলার পরবর্তী শুনানি ৩০ মে

বিজ্ঞাপন
default-image

নাইকো দুর্নীতি মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানি পিছিয়েছে। ৩০ মে শুনানির নতুন দিন ঠিক করেছেন আদালত। আজ রোববার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৯–এর বিচারক শেখ হাফিজুর রহমান এই দিন ঠিক করেন। কেরানীগঞ্জ কারাগারে স্থাপিত অস্থায়ী আদালতে নাইকো দুর্নীতি মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। শুনানিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়াকে আজ হাজির করা হয়নি।

খালেদা জিয়ার পক্ষে আদালতে উপস্থিত ছিলেন আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার ও সৈয়দ জয়নুল আবেদিন। আর দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল। ১ এপ্রিল খালেদা জিয়াকে বিএসএমএমইউতে নেওয়া হয় । দুর্নীতির পৃথক দুই মামলায় দণ্ডিত খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পরিত্যক্ত কারাগারে রাখা হচ্ছে। গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে তিনি কারাবন্দী।

বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে খালেদা জিয়া গ্রেপ্তার হওয়ার পর ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর তেজগাঁও থানায় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) মামলা করে। ২০০৮ সালের ৫ মে খালেদা জিয়াসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে এই মামলায় অভিযোগপত্র দেয় দুদক।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, ক্ষমতার অপব্যবহার করে তিনটি গ্যাসক্ষেত্র পরিত্যক্ত দেখিয়ে কানাডীয় কোম্পানি নাইকোর হাতে ‘তুলে দেওয়ার’ মাধ্যমে আসামিরা রাষ্ট্রের প্রায় ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকার ক্ষতি করেছেন। আসামিপক্ষ মামলার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করলে হাইকোর্ট ওই বছরের ৯ জুলাই এই মামলার কার্যক্রম স্থগিত করেন এবং রুল দেন। প্রায় সাত বছর পর ২০১৫ সালের ১৮ জুন হাইকোর্ট রুল নিষ্পত্তি করেন। একই সঙ্গে খালেদা জিয়াকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন। পরে ওই বছরের ডিসেম্বরে আত্মসমর্পণ করে জামিন নেন খালেদা জিয়া।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন