বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ি থেকে বের হন শিক্ষক খাজা মিয়া। এরপর পরিবারের লোকজন বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেও তাঁর কোনো সন্ধান পাননি। আজ বেলা ১১টার দিকে স্থানীয় লোকজন তাঁর গ্রামের পাশে করতোয়া নদীতে লাশ ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শিক্ষক খাজা মিয়ার কপালে কয়েকটি আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এ ছাড়া তাঁর এক পা ভেঙে ফেলা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, কেউ তাঁকে হত্যা করে নদীতে ফেলে দিয়েছে। গতকাল বিকেল সাড়ে পাঁচটায় এ প্রতিবদেন লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা হয়নি।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম মেহেদী হাসান বলেন, শুক্রবার দুপুরে তাঁর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন