default-image

হেফাজতে ইসলামের সাবেক আমির শাহ আহমদ শফীকে হত্যার অভিযোগে করা মামলার বাদী নিরাপত্তা চেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। আজ রোববার বিকেলে নগরের পাঁচলাইশ থানায় বাদী মঈন উদ্দীন এই জিডি করেন।

মামলার বাদী ও শাহ আহমদ শফীর শ্যালক মঈন উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, নগরের পাঁচলাইশ মোহাম্মদপুর এলাকায় তাঁর বাসা। সম্প্রতি বাসার গলির আশপাশে কিছু অপরিচিত মুখ দেখছেন, যাঁদের তিনি আগে কখনো দেখেননি। তাঁর ধারণা, তাঁকে হত্যার জন্য কেউ পরিকল্পনা করছে। এতে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। কাউকে সন্দেহ করছেন কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘কাউকে সন্দেহ করছি না। জিডিতে কারও নামও উল্লেখ করিনি। ভয়ে থাকায় থানায় জিডি করেছি।’

এ বিষয়ে পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাশেম ভূঁইয়া বলেন, তদন্ত করে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন

পূর্বপরিকল্পিতভাবে আহমদ শফীকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগে গত বছরের ১৭ ডিসেম্বর আদালতে মামলা করেন আহমদ শফীর শ্যালক মো. মঈন উদ্দীন। মামলার আরজিতে বলা হয়, অসুস্থ হলেও আহমদ শফীকে চট্টগ্রামের হাটহাজারী মাদ্রাসায় তাঁর কক্ষে আটকে রাখা হয়। তাঁর কক্ষে আসামিদের ইন্ধনে হামলা ও ভাঙচুর চালানো হয়। মাদ্রাসা মাঠে আহমদ শফীকে বহনকারী অ্যাম্বুলেন্সটি আটকে রাখা হয়।

এই মৃত্যুর ঘটনায় গত ১২ এপ্রিল হেফাজতে ইসলামের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির আমির জুনায়েদ বাবুনগরীসহ ৪৩ জনের বিরুদ্ধে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেয় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন