নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের মামলার প্রধান আসামি নূর হোসেনকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে দেওয়ার বিষয়ে দেশটির সরকারের কোনো চিঠি পশ্চিমবঙ্গের বারাসাতের আদালত পাননি।

আজ সোমবার বারাসাত জেলা আদালতের সরকারি আইনজীবী বিকাশ রঞ্জন দে প্রথম আলোকে এ কথা জানান। তিনি বলেন, নূর হোসেনকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে দেওয়া বা মামলার কার্যক্রম নিয়ে ভারত সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে কোনো চিঠি এ আদালতে আসেনি।
এ মাসের মাঝামাঝি সময়ে চিঠি দিয়ে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, নূর হোসেনকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তর করতে প্রস্তুত দেশটি। কবে, কখন, কোন স্থান থেকে নূর হোসেনকে ফেরত নেওয়া হবে, সে বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়েছে চিঠিতে।

অভিযোগ গঠন না হওয়ায় বিচারকের অসন্তোষ
নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের মামলার প্রধান আসামি নূর হোসেন ও তাঁর দুই সঙ্গীর বিরুদ্ধে চার মাসেও অভিযোগ গঠন না হওয়ায় বারাসাতের মুখ্য বিচার বিভাগীয় বিচারক মধুমিতা রায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। আজ অসন্তোষ প্রকাশ করে অভিযোগ গঠনের জন্য অগামী ৩ জানুয়ারি সর্বশেষ তারিখ নির্ধারণ করেছেন।

নূর হোসেনকে ফেরত পাঠাতে প্রস্তুত ভারত
আজ দুপুরে নূর হোসেনকে দমদম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে আদালতে আনা হয়। তবে জামিনে থাকা নূর হোসেনের দুই সহযোগী খান সুমন ও ওহিদুর জামান আদালতে আসেননি। তাঁরা বারাসাতের জেলা ও দায়রা জজ আদালত থেকে জামিনে আছেন।
আদালতের ঢোকার সময় সাংবাদিকেরা নূর হোসেনের কাছে জানতে চান, তিনি এক সপ্তাহের মধ্যে বাংলাদেশে ফিরে যাচ্ছেন কি না? কোনো উত্তর না দিয়েই নূর হোসেন ভেতরে ঢোকেন। গ্রেপ্তারের পর নূর হোসেনের পক্ষে জামিনের আবেদন না করায় তিনি কারাগারেই আছেন।
সকালে বারাসাতের মুখ্য বিচার বিভাগীয় বিচারক মধুমিতা রায়ের আদালতে মামলাটি উঠলে জামিন পাওয়া দুই আসামির পক্ষে অনুপস্থিত থাকার আবেদন জানানো হয়। খান সুমনের আইনজীবী অনুপ ঘোষ প্রথম আলোকে জানান, আবেদন পাওয়ার পরই বিচারক নূর হোসেন ও তাঁর দুই সঙ্গীর বিরুদ্ধে চার মাসেও অভিযোগ গঠন না হওয়ায় অসন্তোষ প্রকাশ করেন। জামিন পাওয়া দুই আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির কথা বললে আইনজীবীরা আদালতের কাছে সংক্ষিপ্ত সময় চেয়ে আবেদন করে বলেন, তাঁরা আগামী তারিখে দুই আসামিকে হাজির করবেন। আইনজীবীদের এই আবেদনে সাড়া দিয়ে বিচারক আগামী ৩ জানুয়ারি মামলার অভিযোগ গঠনের জন্য চূড়ান্ত তারিখ নির্ধারণ করেন।
এ বছরের ১৪ জুন রাতে বাগুইহাটি থানার পুলিশের সহযোগিতায় বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেটের বিশেষ পুলিশ বাহিনী নূর হোসেন ও তাঁর দুই সঙ্গী খান সুমন ও ওহিদুর জামানকে গ্রেপ্তার করে। গত ১৮ আগস্ট পুলিশ বিদেশি আইনে বেআইনি অনুপ্রবেশের দায়ে তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়। অভিযোগপত্র দেওয়ার পর সাতবার তারিখ নির্ধারণ হলেও তিন আসামির কেউ না কেউ অনুপস্থিত থাকায় আদালত অভিযোগ গঠন করতে পারেননি।

বিজ্ঞাপন
বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন