default-image

নেত্রকোনার মদন উপজেলায় ইঞ্জিনচালিত নৌকা (ট্রলার) থেকে পানিতে পড়ে সাত বছরের এক শিশু নিখোঁজ রয়েছে। আজ শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার মাখনা গ্রামের সামনে এ ঘটনা ঘটে। ট্রলারটি চালাচ্ছিলেন শিশুটির দাদা। শিশুটি পরিবারের সঙ্গে ঘুরতে বের হয়েছিল।
শিশুটির নাম অন্তু মিয়া। সে উপজেলার মাখনা মাইজপাড়া গ্রামের মঞ্জিল মিয়ার ছেলে।

নিখোঁজ অন্তুর দাদা আব্বাস আলী বলেন, ‘বাড়ির সামনে ধলাই নদের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় আজ বিকেলে অন্তুসহ বাড়ির কয়েজন মিলে নিজস্ব ট্রলার দিয়ে ঘুরতে যাই। ট্রলারটি আমি নিজে চালাচ্ছিলাম। বাড়ি ফেরার পথে সন্ধ্যা ছয়টার দিকে হঠাৎ করে চলতি ট্রলার থেকে অন্তু নদীতে পড়ে যায়। ট্রলার থামানোর আগেই মুহূর্তের মধ্যেই সে নদের পানিতে ডুবে যায়। এলাকার লোকজন বিভিন্ন ধরনের জাল দিয়ে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তার কোনো সন্ধান পাচ্ছেন না।’
গ্রামবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, অন্তুরা দুই বোন, দুই ভাই। এর মধ্যে অন্তু সবার বড়। কিছুদিন আগে তার একটি ভাই হয়। সে উপলক্ষ্যে বাড়িতে আত্মীয়স্বজন আসেন। বাড়ির ছোট ছেলেমেয়েরা দাদার কাছে ট্রলারে করে ঘুরতে যাওয়ার বায়না ধরে। ট্রলারটি খোলা ছিল। ট্রলারটি চালানোর একপর্যায়ে বাঁক নেওয়ার সময় ভারসাম্য না রাখতে পেরে ছোট্ট অন্তু ছিটকে পানিতে পড়ে যায়।

এ ব্যাপারে মদন ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের কর্মকর্তা আহমেদুল কবির বলেন, ‘আজ সন্ধ্যায় ধলাই নদে শিশু নিখোঁজের খবর শুনেছি। আমাদের ওখানে ডুবুরি দল না থাকায় ময়মনসিংহ জোনাল অফিসকে জানিয়েছি। ডুবুরি দল এলে উদ্ধারের কাজ চলবে।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0