পঞ্চগড় পৌরসভা এলাকায় কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত ৫০ বছর বয়সী কুলসুম বেগম নামের এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় এ রোগে মোট চারজনের মৃত্যু হলো। বুধবার সকাল ১০টার দিকে নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় ওই নারীর মৃত্যু হয়। কুলসুম বেগম পঞ্চগড় পৌরসভার রাজনগর-নতুনবস্তি এলাকার ইসমাইল হোসেনের স্ত্রী।

বুধবার দুপুরে পঞ্চগড়ের সিভিল সার্জন মো. ফজলুর রহমান প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। মারা যাওয়া ওই নারী দীর্ঘদিন ধরে কিডনির রোগে ভুগছিলেন বলে তিনি জানান।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ও ওই নারীর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, কুলসুম দীর্ঘদিন ধরে কিডনির রোগে ভুগছিলেন। পরিবারের সদস্যরা তাঁকে নিয়মিত রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ডায়ালাইসিস করাতেন। এর মধ্যে তাঁর ৩০ বছর বয়সী ছেলের করোনার উপসর্গ দেখা দেয়। এরপর তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। গত ২৮ জুন প্রতিবেদনে পজিটিভ আসে। পরবর্তী সময়ে ওই নারীরও নমুনা পরীক্ষা করা হয়। ৪ জুলাই তাঁর শরীরেও করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। বুধবার সকালে বাড়িতে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই নারী মারা যান।

সিভিল সার্জন মো. ফজলুর রহমান বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিশেষ সতর্কতার সঙ্গে ওই নারীর দাফনের প্রক্রিয়া চলছে। এ ছাড়া তাঁদের বাড়িসহ আশপাশের এলাকা লকডাউন করা হয়েছে।

এর আগে জেলার বোদা উপজেলার ৬৩ বছর বয়সী সাবেক এক ইউপি চেয়ারম্যান, দেবীগঞ্জ উপজেলার ৮৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধ, পঞ্চগড় সদর উপজেলার ৭৫ বয়সী এক মুক্তিযোদ্ধা কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0