default-image

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম ও হাতীবান্ধা উপজেলায় বজ্রপাতে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আরও দুই ব্যক্তি আহত হয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার ভোররাত চারটার দিকে পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রামে ও সকালের দিকে হাতীবান্ধা উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নে এ বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে।

বজ্রপাতে মৃত ব্যক্তিরা হলেন পাটগ্রামের দহগ্রাম ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামের জহর উদ্দিনের ছেলে রাকিব হোসেন (২৪) ও একই গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে জাহিদুল ইসলাম (২৮), হাতীবান্ধার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের পূর্ব বেজগ্রামের রমজান আলীর ছেলে মন্টু মিয়া (৪৮) ও একই গ্রামের হামেদ আলীর ছেলে আফিজুল ইসলাম (৫০)। আহত ব্যক্তিরা হলেন পাটগ্রামের একই এলাকার ইব্রাহিম মিয়ার ছেলে বাচ্চা মিয়া (২৬) ও আছির উদ্দিনের ছেলে শফিকুল ইসলাম (৩০)।

দহগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান কামাল হোসেন বলেন, আজ ভোররাতের দিকে ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামের রাকিব, জাহিদুল, শফিকুল ও বাচ্চা মিয়া ওই ইউনিয়নের সাকোয়া নদীতে মাছ ধরতে যান। এ সময় বৃষ্টি শুরু হয় এবং বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই রাকিব ও জাহিদুল মারা যান। এ সময় সঙ্গে থাকা অপর দুই ব্যক্তি বাচ্চা ও শফিকুল গুরুতর আহত হন। পরে আহত দুজনকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান স্থানীয় ব্যক্তিরা। পরে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ওই দুই ব্যক্তিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।

এ ছাড়া আজ সকালে পাশের উপজেলা হাতীবান্ধায় টংভাঙ্গা ইউনিয়নের পূর্ব বেজগ্রাম কালিবাড়ি দোলায় মাছ ধরতে যান ওই ইউনিয়নের মন্টু মিয়া ও আফিজুল ইসলাম। এ সময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই দুজন মারা যান। বজ্রপাতে ওই দুই ব্যক্তির মৃত্যুর বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0