সে অনুসারে, সৌদির হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো ই–মেইলে জানানো হয়েছে, পাসপোর্টের তথ্যানুযায়ী জন্মতারিখ ৩০ জুন ১৯৫৭ বা তার আগের তারিখ হলে পাসপোর্টধারীর অনুকূলে আসন্ন মৌসুমে হজ ভিসা ইস্যু করা হবে না। ফলে ২০২২ সালের হজযাত্রীদের পাসপোর্টের তথ্যানুযায়ী জন্মতারিখ ১ জুলাই ১৯৫৭ সাল থেকে পরবর্তী সময় হতে হবে।

এর বাইরে হজযাত্রীদের পূর্ণ ডোজ টিকা নেওয়া থাকতে হবে। সৌদির উদ্দেশে রওনা হওয়ার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে পিসিআর টেস্টের নেগেটিভ সনদ লাগবে।

প্রত্যেক হজযাত্রীকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। হজ পালনের সময় তাঁদের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা সুরক্ষায় নেওয়া সব ধরনের পূর্বসতর্কতামূলক পদক্ষেপ মেনে চলতে হবে।

করোনা মহামারি পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় চলতি বছর ১০ লাখ হজযাত্রীকে হজ করতে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি আরব। বাংলাদেশ থেকে এবার ৫৭ হাজার ৮৫৬ জন হজে যেতে পারবেন।

বাংলাদেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন